৬ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং | ২২শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গোলাপগঞ্জ উপজেলা আ.লীগের কমিটি- ‘সিদ্ধান্ত দেবেন’ শেখ হাসিনা

https://beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/12/gulagonj-awami-lig.jpg

গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন হয়েছে প্রায় দুই সপ্তাহ আগে। কিন্তু এখন অবধি এ উপজেলায় কোনো কমিটি দিতে পারেনি দলটি। অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে সম্মেলনের দিন হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। সেই হট্টগোলের রেশেই গড়াচ্ছে সময়, গণপদত্যাগের হুমকি দিচ্ছেন নেতাকর্মীরা। শেষপর্যন্ত বিষয়টি গড়িয়েছে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার কাছে।

জানা গেছে, গেল ১৩ নভেম্বর গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সম্মেলনে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সিলেট-৬ আসনের (বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ) এমপি নুরুল ইসলাম নাহিদ, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন, মিসবাহ উদ্দিন আহমদ, নির্বাহী সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লুৎফুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সম্মেলনে সমঝোতার ভিত্তিতে কমিটি গঠনের চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তৃণমূলের নেতাকর্মী এবং দলীয় কাউন্সিলররা ভোটের মাধ্যমে কমিটি গঠনের দাবি জানান। একপর্যায়ে বর্তমান কমিটির সভাপতি এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরীকে সভাপতি রেখে ও সৈয়দ মিসবাহকে সাধারণ সম্পাদক করে সমঝোতার কমিটি গঠনের চেষ্টা হয়। মিসবাহ সাংসদ নাহিদের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত। এ সমঝোতার বিপক্ষে ফুঁসে ওঠেন উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। নাহিদ ‘পকেট কমিটি’ গঠনের চেষ্টা করছেন বলে অভিযোগ করেন তারা।

জানা গেছে, ‘পকেট কমিটি’ গঠনের প্রতিবাদে নেতাকর্মীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে। বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা পৌর শহরে সড়কও অবরোধ করেন। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ পুলিশ প্রহরায় সম্মেলনস্থল ত্যাগ করেন।

এদিকে, গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি নিয়ে জেলা আওয়ামী লীগের সিদ্ধান্ত দেওয়ার কথা ছিল। কিন্তু জেলা আওয়ামী লীগ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যেতে পারে, এমন শঙ্কায় কোনো সিদ্ধান্ত দেয়নি। বিষয়টি কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দকে দেখার অনুরোধ করে জেলা আওয়ামী লীগ।

এরই মধ্যে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রায় সাড়ে তিনশ’ কাউন্সিলর কোনো ধরনের ‘পকেট কমিটি’ না দিতে কেন্দ্রের কাছে চিঠি পাঠান। কেন্দ্রীয় নেতারা এ ধরনের কমিটি হবে না বলে তাদেরকে আশ্বস্ত করেন। তবে কমিটি চাপিয়ে দেওয়া হতে পারে, এ আভাস পেয়ে গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের বেশকিছু নেতাকর্মী শনিবার (৩০ নভেম্বর) সিলেট জেলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন। তারা বলেন, কোনো ধরনের পকেট কমিটি বা চাপিয়ে দেওয়া কমিটি তারা মেনে নেবেন না। এ রকম চেষ্টা হলে তারা গণপদত্যাগ করবেন।

আওয়ামী লীগের নির্ভরযোগ্য সূত্র জানিয়েছে, উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে শনিবার সন্ধ্যায় ঢাকায় প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার সাথে দেখা করেন সিলেটের এক প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা, যিনি গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল পদে রয়েছেন। তিনি কমিটি নিয়ে পুরো পরিস্থিতি শেখ হাসিনাকে অবহিত করেন।

বিস্তারিত শুনে শেখ হাসিনা বিষয়টি নিয়ে আওয়ামী লীগের সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনের সাথে কথা বলেন। তিনি গোলাপগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি তাকে অবহিত না করে যাতে দেওয়া না হয়, সে বিষয়ে আহমদকে নির্দেশনা দেন।

তথ্যসূত্র- সিলেটভিউ২৪।

A+ A-

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন পোর্টালসহ বিভিন্ন মাধ্যমে অপপ্রচার- প্রতিবাদ জানিয়েছেন বড়লেখার আলতাব

সড়কে গেলো প্রাণ, বিয়ানীবাজারে বিয়ের অনুষ্ঠানে আসা হলো না তাহেরের

বৈরাগীবাজারে বিনামূল্যে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় ক্যাম্পেইন ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

বিয়ানীবাজারে শুরু হচ্ছে দ্বৈত্য ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্ট, উদ্বোধন ১৭ ডিসেম্বর

জাতীয় পার্টির সম্মেলন- প্রস্তুতি কমিটিতে স্থান পেয়েছেন বিয়ানীবাজারের ৩জন

কাল শনিবার বিয়ানীবাজারে বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ থাকবে

ঘোষণাঃ

Translate »