২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজারের শেওলা স্থল বন্দরের নামই পাল্টে দিল প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর!

https://beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/09/23333-1200x630.jpg

শেওলা স্থল বন্দরের নামই পাল্টে দিল প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর! স্থল শুল্ক স্টেশন থেকে স্থলবন্দরে উন্নীত হওয়া শেওলা স্থল বন্দরের নাম পাল্টে ফেলার কোন দায় নিতে রাজি নন সিলেট জেলার দায়িত্বশীল কর্মকর্তারা। উল্টো এ ভুলে তেমন একটা তফাৎ দেখছেন না বলে দাবি করেন জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা।

শেওলা স্থল বন্দরে প্রাণী সম্পদ কোয়ারেনটাইন স্টেশন নির্মানের পর ভবনের প্রধান ফটকে ভারতের স্থল বন্দরের নাম যুক্ত করেছে প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর। ভিত্তি প্রস্থর ফলকসহ যাবতীয় কাগজপত্রে শেওলা স্থল বন্দর না লিখে সুতারকান্দি স্থল বন্দর লেখা রয়েছে। এ নিয়ে বন্দর ব্যবহারকারি ব্যবসায়ী, স্থানীয় বাসিন্দারা ক্ষোভ প্রকাশ করে প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের অসচেতনতাকে দায়ি করেছেন।

নাম বিভ্রাটের বিষয়টি ধরা পড়ে মঙ্গলবার বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠকের প্রেসরিলিজ দেখে। দুই দেশের সীমান্ত বাহিনী সৌজন্য সাক্ষাত শেষে প্রাণী সম্পদ কোয়ারেনটাইন স্টেশনের সভাকক্ষের বৈঠক করে। গণমাধ্যমে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ৫২ ব্যাটালিয়নের দেয়া প্রেস রিলিজে প্রাণী সম্পদ কোয়ারেনটাইন স্টেশন সুতারকান্দি স্থল বন্দর উল্লেখ করা হলে তথ্য বিভ্রাট দেখা দেয় সাংবাদিকদের মধ্যে।

শেওলা স্থল বন্দর ব্যবহারকারি ইকবাল এন্টারপ্রাইজের পরিচালক জাহেদ ইকবাল বলেন, শুল্ক স্টেশন, এ্যমিগ্রেশনসহ সব জায়গা শেওলা লেখা থাকলেও প্রাণী সম্পদ কোয়ারেনটাইন স্টেশনে সুতারকান্দি লেখা রয়েছে। ফলে অনেকের কাছে প্রশ্ন দেখা দেয় ভবনটি বাংলাদেশের না ভারতের। এটা দায়িত্ব¡শীলদের খামখেয়ালীপনার কারণে হয়েছে। দ্রুত সময়ের মধ্যে ভুল সংশোধন করার দাবি জানাচ্ছি।

শেওলা স্থল বন্দরে প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের কোয়ারেনটাইন

খোঁজ নিয়ে না যায় প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তর থেকে নির্মিত এ কোয়ারেনটাইন স্টেশনের গোড়াতেই গলদ রয়েছে। ডিউ লেটার থেকে শুরু করে একনেকে অনুমোদন পর্যন্ত প্রাণী সম্পদ কোয়ারেনটাইন স্টেশন নির্মাণের প্রতিটি পদক্ষেপে দায়িত্বশীলরা শেওলা স্থল বন্দরের স্থলে সুতারকান্দি স্থল বন্দর নাম ব্যবহার করেছেন। অথচ বাংলাদেশের শেওলা স্থল বন্দরের ওপাশ ভারতের সুতারকান্দি স্থল বন্দর।

উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা ভবনটির ভিত্তি প্রস্থর স্থাপন করেন সাবেক শিক্ষা মন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি। ২০১৫ সালে স্থাপিত ভিত্তি প্রস্তর ফলকেও একই ভুল করা হয়েছে।
উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. রঞ্জিত কুমার আচার বলেন, ভবন নির্মাণের শুরুতে আমাদের কাছে ভুলটি ধরা পড়ে। বিষয়টি একাধিকবার উর্ধ্বতন দায়িত্বশীলদের অবহিত করা হয়েছিল।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কাজী আরিফুর রহমান বলেন, আসলে এটি অনিচ্ছাকৃত ভুল। লোকমূখে শোনে হয়তো দায়িত্বশীলরা এমনটি করেছেন। এটি সংশোধন করার জন্য দায়িত্বশীলদের অবহিত করা হয়েছে। তিনি বলেন, এ ভুলটি একেবারে শুরু থেকে হয়েছে। তখন কারো নজরে সেভাবে আসেনি।

এ বিষয়ে দায়সারা ভাব দেখান জেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. আতিয়ার রহমান। শেওলা স্থল বন্দরের জায়গায় সুতারকান্দি স্থল বন্দর লেখায় কোন পার্থক্য হয়নি। এছাড়া এ বিষয়টি আগের কর্মকর্তারার করেছেন, তারা কেন করলেন বিষয়টি তারাই বলতে পারবেন। এক প্রশ্নের উত্তরে বলেন, অভিযোগ পেলে কিংবা আমাদের নজরে আসলে মন্ত্রণালয়কে অবহিত করবো।

বিষয়টি অমার্জনীয় উল্লেখ করে মৎস্য ও প্রাণী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব ড. একেএম মনরিুল হক বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে ভুল সংশোধন করা হবে। দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে নির্দেশ প্রদান করা হবে। আশাকরি শিগগিরই এ ভুল সংশোধন হয়ে যাবে।

A+ A-

সর্বশেষ সংবাদ

বিয়ানীবাজারে ইউএনওকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিলো পল্লীবাউল লোক সংগীতালয়

বিয়ানীবাজারের শহীদটিলা-কাজিরবাজার রাস্তার বেহাল দশা, চরম জনদুর্ভোগ

সড়ক দুর্ঘটনায় আহত মাওলানা শিহাব উদ্দিন আলীপুরী

১০৯ থেকে খবর পেয়ে বাল্যবিয়ে ঠেকালেন ইউএনও

বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট- সিলেট জেলা চ্যাম্পিয়ন গোলাপগঞ্জ

সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়- ফটকের সামনেই ময়লার ভাগাড়

ঘোষণাঃ

Translate »