২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং | ৬ই আশ্বিন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বিয়ানীবাজার সীমান্তে বিজিবির সতর্ক অবস্থান- সীমান্তবাসীকে সতর্ক থাকার আহবান

https://beanibazarnews24.com/wp-content/uploads/2019/09/BGB-2019-1200x630.jpg

বিয়ানীবাজার উপজেলা ভারত সীমান্ত এলাকায় সতর্ক অবস্থায় টহল দিচ্ছে ৫২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের জোয়ানরা। আসাম থেকে অনুপ্রবেশ ঠেকানো, মাদক ও চোরাচালান রোধ করার পাশাপাশি বিজিবির পক্ষ থেকে সীমান্ত এলাকায় অপরিচিত কাউকে দেখলে নিকটস্থ বিজিবি ফাঁড়িকে অবহিত করার জন্য আহবান জানানো হয়েছে।

গত শনিবার আসামের এনআরসি তালিকা প্রকাশ করা হলেও আগাম সতর্ক হিসেবে গত শুক্রবার উপজেলার মুড়িয়া ইউনিয়নের নয়াগ্রাম সীমান্ত এলাকা এবং দুবাগ ইউনিয়নের বড়গ্রাম, গজুকাটা ও শেওলা স্থলবন্দর এলাকার মসজিদগুলোতে এলাকারবাসীর সহযোগিতা চেয়ে চিঠি দিয়েছে বিজিবি। সীমান্ত এলাকায় কোন অপরিচিত কাউকে দেখা গেলে সাথে সাথে ৫২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের সীমান্ত ফাড়িতে জানানোর জন্য আহবান জানিয়েছেন দায়িত্বশীলরা।

স্থানীয় বাসিন্দা গিয়াস উদ্দিন বলেন, ‘মসজিদে ও বাজারে গিয়ে বিজিবি সৈনিকরা আমাদের সহযোগিতা চেয়েছেন। এলাকায় কোন অপরিচিত মানুষ দেখলে যেন তাদের জানানো হয়। আজ দুপুর পর্যন্ত এলাকায় ভারত থেকে আইছে এমন কাউকে আমরা দেখিনী।’ বিজিবি আগের চেয়ে আরো সতর্কভাবে টহল দিচ্ছে বলে জানান নয়াগ্রাম এলাকার অধিবাসী মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রব। তিনি বলেন, আগে সকাল ও বিকালে বিজিবি টহল দিতো। এখন দুপুর ও সন্ধ্যা বেলাও টহল দিচ্ছে। রাতে বের হলে বিজিবি সৈনিকদের চলাচল করতে দেখা যায়।

সোমবার দুপুরে সরেজমিন গিয়ে দেখা যায় নয়াগ্রাম সীমান্ত ফাড়ির বিজিবি জোয়ানরা সোনাইনদীর পাশ ধরে টহল দিচ্ছেন। নদীর ওপার ভারতের আসাম জেলার লাতু এলাকা। পালাক্রমে সকাল, দুপুর, বিকাল ও রাতে ৫২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের জোয়ানরা টহল অব্যাহত রেখেছেন বলে জানান ৫২ বিজিবি নয়াগ্রাম ফাড়ির দায়িত্বশীলরা।

নয়াগ্রাম সীমান্ত এলাকার মতো উপজেলার বড়গ্রাম, শেওলা স্থলবন্দর, গজুকাটা এলাকায় বিজিবি আগের চেয়ে আরো সর্তকভাবে টহল দিচ্ছেন। একই সাথে জোয়ানরা সীমান্ত চৌকির মাধ্যমে এলাকার নজরদারি করছেন। বিয়ানীবাজার উপজেলার সাথে ভারতের আসাম রাজ্যের সীমান্ত এলাকা রয়েছে প্রায় ৫ কিলোমিটার।

নয়াগ্রাম সীমান্ত ফাড়ির দায়িত্বশীল নায়েব সুবেদার জাহাঙ্গীর বলেন, ফাড়ি থেকে চাতাল এলাকা পর্যন্ত জোয়ানরা টহল দিচ্ছেন। একই সাথে হাওরের মধ্যে পেইন পিলার ১৩৬৩ এবং তার দুই পাশের ৬২ ও ৬৪ নম্বর পিলার এলাকায়ও টহল দেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, নয়াগ্রাম এলাকা দিয়ে অনুপ্রবেশ করার মতো কোন সুযোগ নেই।

৫২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্ণেল ফয়জুর রহমান বলেন, সীমান্ত সুরক্ষা রাখতে বিজিবি জোয়ানরা পাহারা দিচ্ছেন। একই সাথে অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজিবির পাশাপাশি স্থানীয় এলাকাবাসীকেও সতর্ক থাকার আহবান জানানো হয়েছে। তিনি বলেন, কোন অবস্থায় অনুপ্রবেশ করতে দেয়া হবে না। ৫২ বিজিবি ব্যাটালিয়নের আওতাধীন এলাকায় আমরা সর্বোচ্চ সর্তক অবস্থায় রয়েছি।

A+ A-

সর্বশেষ সংবাদ

বিয়ানীবাজারে ইউএনওকে বিদায়ী সংবর্ধনা দিলো পল্লীবাউল লোক সংগীতালয়

বিয়ানীবাজারের শহীদটিলা-কাজিরবাজার রাস্তার বেহাল দশা, চরম জনদুর্ভোগ

সড়ক দুর্ঘটনায় আহত মাওলানা শিহাব উদ্দিন আলীপুরী

১০৯ থেকে খবর পেয়ে বাল্যবিয়ে ঠেকালেন ইউএনও

বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট- সিলেট জেলা চ্যাম্পিয়ন গোলাপগঞ্জ

সিলেট সরকারি পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়- ফটকের সামনেই ময়লার ভাগাড়

ঘোষণাঃ

Translate »