বিয়ানীবাজার উপজেলার বিভিন্ন সড়কে রয়েছে একাধিক ঝুঁকিপূর্ণ মোড়। একদিক থেকে গাড়ি আসলে দেখা যায়না বিপরীত দিক থেকে আসা গাড়ি। সে কারণে এসব মোড়ে প্রায়শই ঘটে দুর্ঘটনা। এজন্য সড়কে দুর্ঘটনা রোধে নিজের অর্থায়নে উপজেলার ঝুঁকিপূর্ণ মোড়ে অত্যাধুনিক আয়না স্থাপন করে যাচ্ছেন মো. ছানাউল ইসলাম নামের একজন যুক্তরাজ্য প্রবাসী। কার্যক্রমের অংশ হিসেবে উপজেলার বিয়ানীবাজার-পীরেরচক-গাংকুল সড়কের আরেকটি ঝুঁকিপূর্ণ মোড়ে আয়না স্থাপন করেছেন এই প্রবাসী।

আজ শুক্রবার (২১ সেপ্টেম্বর) উপজেলার বিয়ানীবাজার-পীরেরচক-গাংকুল সড়কের গোয়ালীবাড়ি নামক স্থানে এই আয়না স্থাপনের মাধ্যমে এ কর্মসূচির আরেকটি কার্যক্রম সম্পন্ন করেছেন। এতে মোড়ের এক পাশ থেকে অন্যপাশের গাড়ি দেখা যাবে আয়নাতেই। এতে রোধ হবে সড়ক র্ঘটনা।

প্রবাসী ছানাউল ইসলাম ইংল্যান্ডের রেড় ড্রাইভিং স্কুলের ইন্সট্রাকটর ও বিয়ানীবাজার উপজেলার দাসউরা গ্রামের বাসিন্দা। বাংলাদেশে ‘মিরর বিডি’ নামের একটি সংগঠনের মাধ্যমে তিনি উপজেলার প্রায় সবকটি ঝুঁকিপূর্ণ মোড়ে আয়না স্থাপ্নের উদ্যোগ নিয়েছেন। ইতিমধ্যে কয়েকটি ঝুঁকিপূর্ণ মোড়ে আয়না স্থাপন বাস্তবায়িত হয়েছে। ছানাউল হকের এ কার্যক্রমকে সাধুবাদ জানিয়েছেন স্থানীয় এলাকাবাসী।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, উপজেলার ঝুকিপূর্ণ মোড়্গুলোতে আয়না স্থাপনের উদ্যোগ খুবই প্রশংসনীয় এবং সচেতনতামূলক একটি কার্যক্রম। এই উদ্যোগের ফলে সড়কে চলাচলকারী সকল যানবাহনের চালকরা বেশ উপকৃত হবেন। ফলে সড়কে দুর্ঘটনার হার অনেকাংশেই কমে যাবে।

আয়না স্থাপনকালে উপস্থিত ছিলেন ‘মিরর বিডি’র বাংলাদেশের পরিচালক ও বেজগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক মো. জয়নুল ইসলাম, আরেঙ্গাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ফেরদৌস ইসলাম, ব্যবসায়ী আব্দুল কাদির, আসুক উদ্দিন, ছাত্রনেতা নিজামুল ইসলাম রেদওয়ান, রফিকুল ইসলাম রাব্বি, মাহিনুল ইসলাম , আবেদুল ইসলাম, কামরানসহ প্রমুখ।