বিয়ানীবাজার পৌরসভার সুপাতলাস্থ প্রধান সড়ক থেকে খাসাড়িপাড়ার পর্যন্ত সংযোগ সড়ক চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। দীর্ঘদিন থেকে সড়কের পলেস্তারা উঠে গিয়ে গর্ত সৃষ্টি হওয়ায় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে স্থানীয়দের। স্থানীয় অধিবাসীরা সড়কটি দ্রুত সংস্কারের দাবি জানিয়েছেন।

সুপাতলা-খাসাড়িপাড়া লিংক রোড দিয়ে প্রধান সড়ক থেকে খুব সহজে এবং দ্রুত খাসাড়িপাড়াসহ মুড়িয়া ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় যাওয়া যায়। এতে প্রধান সড়ক ও পৌরশহরের উপর যান চলাচলের চাপ কমে আসে। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে সড়কটি চলাচল অনুপযোগী হওয়ায় যান চলাচলে বিড়ম্বনা পোহাতে হচ্ছে। একই সাথে বৃষ্টি হলে হাঁটাচলা দায় হয়ে পড়ে।

বিয়ানীবাজার পৌরসভা সূত্রে জানা যায়, পৌরশহরের প্রধান সড়ক (সুপাতলা) থেকে খাসাড়িপাড়া পর্যন্ত এ সড়কের দৈর্ঘ ১৭শ’ ফুট। খাসাড়িপাড়া অংশের প্রথম তিনশ ফুট কয়েক বছর পূর্বে ইট সলিং করা হয়। অবশিষ্ট ১৪শ’ ফুট সড়ক বিটুমিন-পাথর দিয়ে সংস্কার করা হয়েছিল। বর্তমান বিটুমিন দিয়ে সংস্কার করা অংশ সবচেয়ে নাজুক অবস্থা বিরাজ করছে।

সুপাতলা গ্রামের আজিম উদ্দিন আরিফ বলেন, বৃষ্টি হলেই ড্রেন উপচে সড়কটি হাটু পানিতে তলিয়ে যায়। এতে চলাচলে গ্রামবাসী মারাত্মক সমস্যার সম্মুখিন হন। আমরা এ থেকে পরিত্রাণ পেতে পৌর কর্তৃপক্ষের নিকট ড্রেন নির্মাণ ও সড়ক সংস্কারের দাবি জানাচ্ছি।

ব্যবসায়ী আব্দুর রহমান বলেন, শহরের যানজট যন্ত্রণা পাশ কাটিয়ে খুব সহজে খাসাড়িপাড়াসহ কোনাগ্রাম-তাজপুর এলাকায় সুপাতলা-খাসাড়িপাড়া সংযোগ সড়ক দিয়ে যাওয়া যেত। কিন্তু গত বছর থেকে সড়কটির বেহাল দশা থাকায় মোকাম মসজিদ রোড দিয়ে আমরা চলাচল করছি। এতে সময় ও ভোগান্তি- দুইটাই বেড়েছে।

বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র মো. আব্দুস শুকুর বলেন, পৌর এলাকার ভেঙ্গে যাওয়া সবগুলো সড়ক সংস্কার এবং নাজুক ড্রেন উন্নয়নে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। সে তালিকায় সুপাতলা-খাসাড়িপাড়া সংযোগ সড়কটি রয়েছে। আশা করি একটি প্রকল্প প্রণয়নের মাধ্যমে এ সড়কের সংস্কার কাজ দ্রুত সময়ের মধ্যে করতে পারবো।