সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের গোলাপগঞ্জ অংশের হিলালপুর থেকে বাইপাস পর্যন্ত প্রায় দুই কিলোমিটার রাস্তা দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারের অভাবে যানচলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এ সড়কের গোলাপগঞ্জের অন্য অংশের সংস্কার কাজ হলেও এই দুই কিলোমিটার সড়ক দীর্ঘ দিন ধরে অজানা কারণে দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারবিহীন পড়ে আছে। এতে এই দুই কিলোমিটার সড়কের প্রায় স্থানের কার্পেটিং উঠে গিয়ে দেখা দিয়েছে গর্ত ও ভাঙন। বেরিয়ে পড়েছে সড়কের ইট-খোয়া। ঝুঁকিপূর্ণ সড়কটিতে বিপজ্জনকভাবে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন চলাচল করছে। গর্ত ও কাদায় গাড়ি আটকে যাচ্ছে। ফলে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হচ্ছে।

জানা যায়, পূর্ব সিলেটের গোলাপগঞ্জ, বিয়ানীবাজার, কানাইঘাট, জকিগঞ্জ, বড়লেখাসহ মোট ৫টি উপজেলার কয়েক লাখ মানুষ সিলেট-জকিগঞ্জ সড়ক দিয়ে যাতায়াত করেন। সিলেট শহরের সঙ্গে ৫টি উপজেলার যোগাযোগ স্থাপনকারী ৬৫ কিলোমিটারের এই সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কটি দীর্ঘদিন ধরে সংস্কারহীন অবস্থায় পড়ে থাকায় চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়লে ২০১৮ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি সড়কটির সংস্কারে কাজ শুরু হয়ে ২০২০ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে কাজ সম্পন্ন হয়। কিন্তু অজানা কারণে এ সড়কের গোলাপগঞ্জের হিলালপুর থেকে বাইপাস পর্যন্ত কোন সংস্কার কাজ না করেই এভাবে আগের অবস্থায় ফেলে রাখা হয়।

সরেজমিন এলাকাবাসীর সাথে কথা বলে জানা যায়, সড়কের গোলাপগঞ্জ উপজেলার পাঁচমাইল থেকে নতুন জামে মসজিদ পর্যন্ত প্রায় এক কিলোমিটার এলাকায় প্রায় সময় বড় বড় গর্তে গাড়ি আটকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে দীর্ঘ সময় হেতিমগঞ্জ বাজার থেকে বাইপাস পর্যন্ত কয়েক শতাধিক গাড়ি আটকে থাকে। এতে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয় যাত্রী সাধারণকে।

সিএনজি চালক আরিফ আহমদ জানান, সিলেট জকিগঞ্জ সড়কের এই দুই কিলোমিটার রাস্তার জন্য চরম দুর্ভোগের মধ্যে রয়েছি আমরা। যেখানে গোলাপগঞ্জ থেকে সিলেটে যেতে ৩০ থেকে ৪০ মিনিট লাগতো সেখানে শুধু হিলালপুর থেকে বাইপাস যেতেই সময় লাগে ১থেকে দেড় ঘন্ট। সবচেয়ে বেশি কষ্ট হয় অসুস্থ যাত্রীদের সিলেটে নিয়ে যেতে ।

স্থানীয় এলাকাবাসীর মধ্যে ত্রিবাস চন্দ্র দাস, হেতিমগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ী আব্দুস শুক্কুর সহ বেশ কয়েকজনের সাথে কথা বলে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের এই অংশের বেহাল অবস্থা। জনপ্রতিনিধিরা দেখেও না দেখার বান করেন। এলাকাবাসী বিভিন্ন সময় তাদের কাছে ধরনা দিয়েও কোন কাজে আসছেনা না। শুধু আশ্বাসেই মধ্যেই সীমাবদ্ধ সংস্কার কাজ।

নিরাপদ সড়ক চাই (নিসচা) এর গোলাপগঞ্জ উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন মাহমুদ জানান, দীর্ঘদিন ধরে মাত্র দুই কিলোমিটার সড়কের বেহাল দশা। এই অংশের বেহাল দশার জন্য প্রতিনিয়ত ঘটছে ছোটবড় সড়ক দুর্ঘটনা। তিনি এই জনগুরুত্বপূর্ণ সড়টি দ্রুত সংস্কারের জোর দাবি জানান।

সিলেট-গোলাপগঞ্জ সাধারণ যাত্রী কল্যাণ পরিষদের আহবায়ক মোঃ সুজন খান জানান, সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের সকল অংশ সংস্কার হলেও দীর্ঘদিন ধরে হিলালপুর থেকে বাইপাস পর্যন্ত মাত্র দুই কিলোমিটার সড়ক কেন সংস্কার হয়না তা সবার অজানা। খানখন্দের কারণে সড়কের এই অংশে প্রতিনিয়ত যানজট লেগেই তাকে। ঘন্টার পর ঘন্টা গাড়িতে বসে থাকতে হয় যাত্রীদের। এতে দুর্ভোগে পড়েন জরুরি কাজে বের হওয়া যাত্রী সাধারণ। দ্রুত সড়কের এ অংশটি সংস্কারের জন্য তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি জোর দাবি জানান।

এদিকে এলাকাবাসী এই দুই কিলোমিটার রাস্তা সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধনও করেছেন । শিগগিরী সড়কের এই অংশটুকু সংস্কার না করলে সড়ক অবরোধ সহ কঠোর কর্মসূচীর হুশিয়ারীও দিয়েছেন তারা।

এ ব্যাপারে সড়ক ও জনপথ বিভাগ সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী রিতেশ বড়ুয়া জানান, সড়কের এই অংশের কার্পেটিং উঠে গেছে। এজন্য এই অংশের কাজ শক্তভাবে করতে হবে। এজন্য প্রকল্পটি সংশোধন করে আবারো মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়েছে। আশা করছি এই শীতের মধ্যেই সংস্কার কাজ শুরু হয়ে যাবে। আপাতত রাস্তাটি যান চলাচলে উপযোগী করতে টুকটাক কাজ কাজ করা হচ্ছে।