সিলেটে আগামীকাল সোমবার থেকে দুইদিন প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞদের সংগঠন অবস্টেট্রিক্যাল অ্যান্ড গাইনোকোলজিক্যাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ।

সারাদেশে চিকিৎসকের নিগ্রহের প্রতিবাদে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে এ ঘোষণা দেওয়া হয়।

রোববার (১৬ জুলাই) সর্বস্তরের চিকিৎসকবৃন্দ উপস্থিতিতে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল গেটে এই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশ থেকে অভিযোগ প্রমাণের আগেই ডা. মুনা ও শাহজাদীকে গ্রেপ্তারের নিন্দা জানিয়ে অবিলম্বে তাদের মুক্তির দাবি জানানো হয়।

সহকারী অধ্যাপক ডা. শাহ ফাহমিদা সিদ্দিক পপির পরিচালনায় ওসমানী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ শিশির রঞ্জন চক্রবর্তী বলেন, কোনো মৃত্যুই কারো কাম্য নয়। যাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের যদি কোন অপরাধ থেকে থাকে সেটাও যেন বিচারের আওতায় আনা হয়।

তিনি বলেন, বিনা বিচারে গ্রেপ্তার চিকিৎসকদের জামিন না হওয়া দুষ্ট লোকদের সুযোগ করে দেওয়ার শামিল। তাই চিকিৎসকদের জামিন ও মামলা প্রত্যাহার করা হোক। প্রমাণের আগেই তাদের হয়রানি বন্ধ করা হোক।

এসময় তিনি সারাদেশে আগামীকাল সোমবার থেকে দুদিন প্রাইভেট চেম্বার বন্ধ থাকবে বলে জানান। তবে জরুরী সেবা চালু থাকবে ও জরুরী চিকিৎসা সেবা হাসপাতালে দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

এ ব্যাপারে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মুজিবুল হক জানান, সোমবার থেকে সিলেটে রাইভেট চেম্বার বন্ধ রাখার ঘোষণা দিয়েছে প্রসূতি ও স্ত্রীরোগ বিশেষজ্ঞদের সংগঠন অবস্টেট্রিক্যাল অ্যান্ড গাইনোকোলজিক্যাল সোসাইটি অব বাংলাদেশ। এটা তাদের সংঘটনের ঘোষণা। এতে অন্যান্য চিকিৎসকরা একাত্মতা পোষণ করেছে। এ অবস্থায় চিকিৎসক নিগ্রহের প্রতিবাদ জানিয়ে অনেকেই তাদের চেম্বার বন্ধ রাখবে।

তবে চিকিৎসকদের প্রধান সংগঠন বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন (বিএমএ) এবং স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদ থেকে চেম্বার বন্ধ রাখার কোনো ঘোষণা আসেনি বলেও জানান তিনি। এ

এদিকে প্রতিবাদ সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন, অবস ও গাইনী বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. নাসরিন আক্তার, সার্জারি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. আশিক আনোয়ার বাহার, কার্ডিওলজি বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. মোখলেসুর রহমান, রক্ত পরিসংখ্যান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ডা. এফ এম এ মুসা, গ্যাস্ট্রোলজি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. জাহাঙ্গীর আলম, অবস ও গাইনী বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ডা. জামিলা খাতুন চৌধুরী, সহকারী অধ্যাপক ডা. আজিজুর রহমান রুমান প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন