অপরাধের দ্রুত ও কার্যকর বিচারের উদ্দেশ্যে গঠিত সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল সিলেটে প্রথম রায় দেওয়া হয়েছে। মঙ্গলবার (২২ ডিসেম্বর) সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল সিলেটের বিচারক নুরুল আমিন বিপ্লব সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ আইন ২০০৯ (সংশোধনী ২০১৩) এর আওতায় এই রায় প্রদান করেন।

এর আগে চলতি বছরের মার্চ মাসে এ ট্রাইব্যুনাল গঠন করা হয়। এরপর এটিই ট্রাইব্যুনালের প্রথম রায়।

রায়ে হিজবুত তাওহীদ সন্দেহে আটক দুজনকে খালাস প্রদান করেন আদালত। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আদালতে উপস্থিত থাকা আইনজীবী দেবব্রত চৌধুরী লিটন।

রায় প্রদান কালে আদালত বলেন, আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদেরকে খালাস প্রদান করা হলো। তাদের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়নি।

প্রসঙ্গত, সন্ত্রাসের বিচারে বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠন করার মূল উদ্দেশ্য ছিল সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তকারী, জনমনে আতঙ্ক সৃষ্টিকারী, রাষ্ট্রের সম্পদ বিনষ্টকারী, বিস্ফোরক দ্রব্য ব্যবহারকারীসহ হত্যা ও গুমের সঙ্গে জড়িতদের বিচার করা হয়। এই ট্রাইব্যুনালকে অপরাধীদের মৃত্যুদন্ডসহ বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেওয়ার এখতিয়ার দেওয়া রয়েছে । মামলা নিষ্পত্তির জন্য বেঁধে দেওয়া হচ্ছে ছয় মাস সময়।

এসব অপরাধের বিচার ছয় মাসের মধ্যে বিশেষ আদালত সম্পন্ন করবে। এমন অপরাধীদের বিরুদ্ধে ট্রাইব্যুনাল সর্বোচ্চ মৃত্যুদন্ড বা যাবজ্জীবন কারাদন্ডের রায় দেবে। এর বাইরেও ট্রাইব্যুনালকে অতিরিক্ত অর্থদন্ড দেওয়ার এখতিয়ার দেওয়া হয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

সবজি চাষে স্বাবলম্বী বেকার যুবক আলম