সিলেটের সোবহানীঘাট এলাকায় জালালাবাদ কলেজের সামনে গত ৭ আগস্ট সন্ত্রাসী হামলার স্বীকার হন সিলেট মহানগর ছাত্রলীগ কর্মী শাহীন আহমদ ও আবুল কালাম আসিফ। হামলায় গুরুতর আহত হয়ে দুজনই এখনো চিকিৎসাধীন। ফেসবুক স্ট্যাটাসে আসিফ শিবিরের হাসলার নেপথ্য কারণ তুলে ধরেন। কলেজে ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠিত করা এবং জাতির জনকের ছবি কলেজের স্থাপন করার বিষয়টি আলোচনায় আসায় তাদের উপর র্ববরোচিত হামলা চালানো হয়েছে।

ঘটনার পর থেকে সিলেট ওসমানী হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়েছেন আবুল কালাম আসিফ এবং শাহীন আহমদকে পাঠানো হয় ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে। সেখানে থেকে চিকিৎসা নিয়ে শাহিন আপাতত নিজ বাড়িতে রয়েছেন। প্রায় ৩ সপ্তাহেরও বেশী সময় ধরে চিকিৎসা নিয়ে গত বুধবার বাসায় ফিরেছেন আসিফ। বাসায় ফিরে হামলার ঘটনা নিয়ে তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে একটি পোস্ট করেছেন তিনি।

বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪ এর পাঠকদের জন্য পোস্টটি অবিকল তুলে ধরা হল-

‘গত ৭ আগস্ট সিলেটের সোবহানিঘাটে জালালাবাদ কলেজে জামাত শিবিরের কুখ্যাত সন্ত্রাসীদের হাতে অতর্কিত হামলার শিকার হই আমি ও আমার বন্ধু শাহিন। নরপিশাচদের রাম দা আর ধারালো অস্ত্রের কোপে ক্ষত বিক্ষত আমার ও আমার প্রানপ্রিয় মুজিব আদর্শের বন্ধু শাহিনের শরীর। আক্রমণের কারণ কি জানেন? আমরা শিবির নিয়ন্ত্রিত জালালাবাদ কলেজে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন ছাত্রলীগ প্রতিষ্ঠিত করেছিলাম। এতে আমাদের সবসময় অনুপ্রাণিত করেছেন সিলেট মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাহাত তারাফদার ভাই। আর কলেজে দেশের সংবিধান অনুযায়ী জাতির জনকের ছবি ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি লাগানোর আন্দোলনে সফল হতে চলেছিলাম ।

যাই হউক আমার শাহিনের এক হাত কাটা এক পা খুব বেশি আশংকাজনক। আমি আজ বাসায় ফিরেছি ওসমানীর ভয়াবহ কেবিন নাম্বার ১৫ থেকে আমার ডান হাত আর বাম পায়ের রগ কেটে দিয়েছে শিবিরের শুয়োর গুলো। ঈদের পরপরেই হাতে প্রয়োজন মেজর একটি অপারেশন। বাসায় ফিরেছি নামেমাত্র প্রথম বারের মতে ঈদের জামাতটাও মিস হতে চলেছে আমার আহহ কি যন্ত্রণা। ভার্সিটিতে কবে যাওয়া হবে জানিনা।

মহান আল্লাহর অশেষ মেহেরবাণীতে বেঁচে আছি আমরা, সকলকে ধন্যবাদ এতো ভালোবাসা দেওয়ার জন্য।

মনে রেখো হে স্বাধীনতা বিরোধী অপশক্তি দেশ-স্বাধীনতা-মানবসেবায় ছাত্রলীগাররা জীবন আত্মত্যাগ দিতে ভয় পায় না অতীতেই প্রমাণিত।

বঙ্গবন্ধু সৃষ্টিকর্তার এক অমুল্য সৃষ্টি
শেখ মুজিব মানেই প্রেরণা-শক্তি-স্বাধীনতা
ছাত্রলীগ আমার শিরা উপশিরায়
আমি আওয়ামী পরিবারের সন্তান
আবারো ফিরতে চাই মোরা রাজনীতির মাঠে মানবসেবায় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পুরনে।

তবে আফসোস স্বাধীন বাংলার স্থপতির ছবি লাগাতে এতো বাঁধা। হারাতে হয় হাত পা বরণ করে নিতে হয় পঙ্গুত্ব। এতো দিনে একটা আসামী শিবির ক্যাডার ধরা গেলো না।

আল্লাহ সর্বশক্তিমান
জয় বাংলা
জয় বঙ্গবন্ধু
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ’