বিপিএলের নতুন ফ্র্যাঞ্চাইজিটি সিলেটের তৃণমূল থেকে প্রতিভাবান বোলারদের খুঁজে বের করতে কাজ শুরু করেছে। সে লক্ষ্যে ‘বোলার হান্ট’ কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে সিলেট সিক্সার্স। আগামী ২০ অক্টোর থেকে সিলেট বিভাগের চার জেলায় বোলার হান্ট পরিচালনা করা হবে।

সিলেট সিক্সার্স সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, আগামী ২০ অক্টোবর থেকে এ কার্যক্রম শুরু হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। মূলত সিলেট বিভাগের চারটি জেলাতেই এ কার্যক্রম চলবে।

সূত্র মতে, সিলেট বিভাগের সিলেট, মৌলভীবাজার, হবিগঞ্জ ও সুনামগঞ্জ জেলায় পৃথকভাবে ‘বোলার হান্ট’ কার্যক্রম চলবে। এ চার জেলা থেকে ১০ জন করে ৪০ জনকে নিয়ে সিলেটে হবে চূড়ান্ত পর্ব। সেখানে নির্বাচিত ১০ জনকে সামনে এগিয়ে যেতে সবধরনের সহযোগিতা করবে সিলেট সিক্সার্স।

গত ২২ সেপ্টেম্বর সিলেট সিক্সার্সের একটি সমন্বয় সভা ঢাকায় অনুষ্ঠিত হয়। ওই সভাতেই ‘বোলার হান্ট’ কার্যক্রমের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) এবং সিলেট সিক্সার্সের পরিচালক শফিউল আলম চৌধুরী নাদেল সিলেটভিউ২৪ডটকমকে বলেন, সিলেট সিক্সার্স বোলার হান্ট কার্যক্রমের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। ২০ অক্টোবর থেকে এ কার্যক্রম চলবে। তবে কোন দিন কোন জেলায় কার্যক্রম চলবে, তা এখন ঠিক হয়নি। চার জেলা থেকে বাছাইকৃত সেরা বোলারদের নিয়ে সিলেটে চূড়ান্ত পর্ব হবে। সেখানে যারা বাছাই হবেন, তাদের নিয়ে ভবিষ্যতে কাজ করবে সিলেট সিক্সার্স।

সিলেট সিক্সার্সের প্রধান নির্বাহী র্কমকর্তা ইয়াসির ওবায়েদ জানান, প্রতিভাবান বোলার খুঁজে বের করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। যাদের পাওয়া যাবে, তাদেরকে সিলেট সিক্সার্স সামনে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।

সিলেট সিক্সার্সের এমন উদ্যোগকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। তাদের মতে, বোলার হান্ট কার্যক্রম থেকে ওঠে আসাদের যদি সবধরনের সহযোগিতা দেওয়া যায়, তবে এরাই আগামীতে জাতীয় ক্রিকেটে সিলেটের প্রতিনিধিত্ব করতে পারবে।

যেমনটি বলছিলেন সিলেটের বিশিষ্ট ক্রীড়া সাংবাদিক ও ক্রীড়া বিশ্লেষক সদরুজ্জামান চৌধুরী মান্না, ‘এটি ইতিবাচক একটি উদ্যোগ। এর মাধ্যমে সিলেটের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে থাকা মেধাবী বোলাররা ওঠে আসার একটি সুযোগ পাবে। সঠিকভাবে বোলার হান্ট কার্যক্রম চালিয়ে তাদের তুলে আনা গেলে সিলেটের ক্রিকেট লাভবান হবে।’

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)-এর প্রথম তিন আসরে অংশ নেওয়া সিলেট ফ্র্যাঞ্চাইজির মালিকানায় একজন সিলেটিও ছিলেন না। দলের নামের সাথে সিলেট শব্দটি যুক্ত থাকলেও এ ফ্র্যাঞ্চাইজির কোনো খেলাই হয়নি সিলেটে। প্রথম ও দ্বিতীয় আসরে সিলেট রয়্যালস এবং তৃতীয় আসরে সিলেট সুপার স্টারস নামে অংশগ্রহণ করা ফ্র্যাঞ্চাইজিটি খেলোয়াড়দের বকেয়া পরিশোধ না করায় খেলতে পারেনি গেল আসরে।

এবার অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের ছেলে সাহেদ মুহিতের মালিকানায় বিপিএলে ফিরছে সিলেট ফ্র্যাঞ্চাইজি। আগামী মাসের শুরুতেই ঘরের মাঠে উদ্বোধনী ম্যাচ দিয়ে চার-ছক্কার ফুলঝুরির আসরে নিজেদের যাত্রা শুরু করবে সিলেট সিক্সার্স।