ভারতের রপ্তানি বন্ধের খবরের পরই সারা দেশের ন্যায় সিলেটেও অস্থির পেঁয়াজের বাজার। শুক্রবার (৮ ডিসেম্বর) থেকে সিলেটে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে কেজিতে ৫০ এবং একদিনের মধ্যে ১০০ টাকা বাড়িয়ে পেঁয়াজ বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। তাই এবার জেলা প্রশাসন ও ব্যবসায়ীদের সমন্বয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে পেঁয়াজের দাম।

সিলেটে পাইকারি বাজারে দেশী (মুরি কাটা) পেঁয়াজ ১২০, এলসি পেঁয়াজ ১৪০ টাকা করে বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে জানান সিলেটের সিনিয়র কৃষি বিপণন কর্মকর্তা (দায়িত্বপ্রাপ্ত) আবু সালেহ মো. হুমায়ূন কবির।

সোমবার (১১ ডিসেম্বর) বিকাল সাড়ে চারটায় নগরীর সবচেয়ে বড় পাইকারি আড়ত কালীঘাটের ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে এই দাম নির্ধারণ করা হয় বলে জানান সিলেটের সিনিয়র কৃষি বিপণন কর্মকর্তা।

এরআগে সিলেটে পেঁয়াজের দাম নির্ধারণ করতে সোমবার (১১ ডিসেম্বর) দুপুরে সিলেট জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জরুরি বৈঠক করা হয়। বৈঠকে পুলিশ প্রশাসন ও ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর কর্মকর্তা ও ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে ব্যবসায়ীদের বিকেলের মধ্যে সহনীয় ও যৌক্তিক পর্যায়ে দাম নির্ধারণ করে জেলা প্রশাসনকে অবগত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়।

বৈঠকে অতিরিক্ত দামে সিলেট পেঁয়াজ বিক্রি না করতে কঠোরভাবে নির্দেশ দেন সিলেট জেলা প্রশাসক শেখ রাসেল হাসান। পাশাপাশি নির্দেশনা অমান্য করলে আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান তিনি।

সিলেটের সিনিয়র কৃষি বিপণন কর্মকর্তা (দায়িত্বপ্রাপ্ত) আবু সালেহ মো. হুমায়ূন কবির বলেন, আমরা বাজার মনিটরিংয়ে আছি। দুপুরের বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ব্যবসায়ীরা নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়া করে দাম নির্ধারণ করেছেন। আমরা বিকালে কালীঘাটে অবস্থান করেছি। এবং কালীঘাটে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে পাইকারি বাজারে দেশী (মুরি কাটা) পেঁয়াজ ১২০, এলসি পেঁয়াজ ১৪০ টাকা করে বিক্রির সিদ্ধান্ত হয়েছে। এটা আমরা জেলা প্রশাসক স্যারকে জানানো হবে।

এছাড়াও আমরা এখানে অবস্থান করে এই দামে খুচরা ব্যবসায়ীদের কাছ পেঁয়াজ বিক্রি করিয়েছি।