এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূ গণধর্ষণের ঘটনায় সিলেট সিটি করপোরেশনের কাউন্সিলরদের সঙ্গে নিয়ে এসএমপি কমিশনারের সঙ্গে জরুরি বৈঠক করেছেন সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১টার দিকে নগরীর শাহজালাল উপশহরস্থ সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠকে এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূ ধর্ষণে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় নিয়ে এসে কঠোর শাস্তি নিশ্চিত করতে পুলিশের প্রতি আহ্বান জানান মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও কাউন্সিলরবৃন্দ।

এসময় সকল দোষীদের গ্রেফতারে পুলিশ জোর তৎপরতা চালানো এবং ভিকটিমকে আইনি সকল সহযোগিতা প্রদানের প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন সিলেটে মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার ও পুলিশের উপস্থিত কর্মকর্তাবৃন্দ।

এছাড়াও বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয়- সিটি করপোরেশন এলাকার প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে বখাটেপনা, ইভটিজিং ও ধর্ষণসহ সকল প্রকার অপরাধ কর্মকাণ্ড প্রতিরোধে এখন থেকে নিয়মিত সিসিক ও পুলিশ যৌথভাবে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করবে। অভিযানে নেতৃত্ব দেবেন সিসিকের নির্ধারিত ম্যাজিস্ট্রেট।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, এসএমপি কমিশনার গোলাম কিবরিয়া বিপিএম ও সিসিকের পুরুষ-মহিলা কাউন্সিলর এবং সিলেট মহানগর পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ।

এবিটিভির প্রতিবেদন-

জকিগঞ্জের রসুলপুরে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে এলাকাবাসীর মতবিনিময়