সিলেটে গত ১০ জুন ছিনতাইকারির হামলায় আহত বিয়ানীবাজারের মহিলার মৃত্যু হয়েছে। আজ রবিবার সকাল ৮টায় সিলেটের আল হারমাইন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।

নিহত মহিলার নাম সালেহ শফিক। তিনি পরিবারের সাথে সিলেট উপশহর ই-ব্লকের ৫নং রোডের ১৮৬ নং বাসায় বসবাস করতেন। তার স্বামীর নাম মো. শফিক উদ্দিন। তাদের মূলবাড়ী বিয়ানীবাজার উপজেলার কোনাগ্রামে।

তার ছেলে সাইদুস সালেহীন একটা বেসরকারী গ্যাস কোম্পানীর কর্মকর্তা। এ ঘটনায় সিলেট কোতোয়ালী থানায় মামলা দায়ের করা হয়। খবর পেয়ে পুলিশ লাশের সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরী করেছে। আইন প্রক্রিয়া সম্পন্ন শেষে সিলেট দরগা মসজিদ প্রাঙ্গনে জানাযার নামাজ শেষে দরগা কবরস্থানে লাশ দাফন করা হবে।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, ১০ জুন ঢাকা থেকে সিলেট এসে বাসার যাওয়ার উদ্দেশ্যে হুমায়ন রশিদ চত্বরে নামেন সালেহা। সেখান থেকে সিএনজি অটোরিক্সা নিয়ে উপশহরে বাসায় যাওয়ার পথে নতুন ব্রীজের শেষ মাথায় মটরসাইকেলে তিন ছিনতাইকারী এসে তার হাতের ব্যাগ টান দেয়। তিনি চলন্ত গাড়ী থেকে রাস্তা পড়ে যান। ছিনতাইকারীরা ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায়। রাস্তায় পড়ে মাথার বা পাশে আঘাত পেয়েছিলেন।

খবর পেয়ে স্বজনরা বিয়ানীবাজার থেকে সিলেট ছুটে যান। স্বজন জাহাঙ্গীর জানান, আজ বাদ আসর লাশ দাফনের সময় নির্ধারণ করা হলেও আইনী প্রক্রিয়ার জন্য সময় পেছানো হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর লাশ দাফন করা হবে। সিলেট দরগা প্রাঙ্গনে জানাযার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।