সাবেক শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদকে নিয়ে অপপ্রচারের তীব্র নিন্দ ও প্রতিবাদ জানিয়েছে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগ। শনিবার সংবাদ মাধ্যমে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান খান ও সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল স্বাক্ষরীত প্রতিবাদ পত্র প্রেরণ করেন।

প্রতিবাদ পত্রে তাঁরা উল্লেখ করেন, “গভীর উদ্বেগের সাথে লক্ষ্য করছি যে, বিগত কয়েকদিন যাবত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকসহ কতিপয় প্রিন্ট মিডিয়ায় জনৈক আফসার খান সাদেক শেওলা সেতুর টোল আদায় সংক্রান্ত বিষয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক শিক্ষামন্ত্রী, সিলেট-০৬ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদকে নিয়ে মিথ্যা ও বিভ্রান্তমুলক তথ্য দিয়ে জনমনে তাঁর বিরুদ্ধে ভুল ধারণা তৈরীর অপপ্রয়াস চালাচ্ছে।‘তিনি বলেছেন- নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি’র আত্মীয় অবৈধভাবে শেওলা সেতুর টোল আদায় করছেন’। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা, বানোয়াট ও ভিত্তিহীন। প্রকৃত পক্ষে সড়ক ও জনপথ বিভাগ টেন্ডারের মাধ্যমে শেওলা সেতুর টোল আদায় করে থাকেন এবং উপজেলার মাথিউরা গ্রামের জনৈক জিয়াউল হক টোল আদায়ের নির্বাচিত ব্যক্তি। যার সাথে নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি’র কোন আত্মীয়তার সম্পর্ক নেই।”

এহেন জঘন্য অপপ্রচারের বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগসহ সর্বস্তরের নেতাকর্মী ক্ষুব্ধ ও মর্মাহত। এ রকম মিথ্যা, মনগড়া ও বানোয়াট সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলের আহবান জানান বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের এ দুই দায়িত্বশীল।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

চোখে না দেখলেও অনায়াসেই চলাচল করতে পারেন বিয়ানীবাজারের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী সবুর মিয়া