মরক্কো থেকে সাগর পথে স্পেন যাওয়ার সময় নৌকা ডুবে সিলেটের আরও দুই তরুণের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। তারা হলেন- বিশ্বনাথ উপজেলার অলংকারী ইউনিয়নের পেছিখুরমা (বড়বাড়ী) গ্রামের আশিক মিয়ার ছেলে, আবু আশরাফ (১৮) ও দক্ষিণ সুরমার কামালবাজারের পুরানগাও গ্রামের বশির উদ্দিনের ছেলে, রেদওয়ান আহমেদ শাহীন (১৯)।

আবু আশরাফ ও রেদওয়ান আহমেদ শাহীন গত সোমবার নৌকা ডুবিতে মারা যায়। মরে যাওয়ার খবর দুজনের পরিবার থেকে নিশ্চিত করা হয়।

জানা যায়, ইউরোপের দেশ স্পেনে যাওয়ার উদ্দেশ্যে প্রায় এক বছর দুই মাস পূর্বে ১৫ লাখ টাকা চুক্তিতে দালালের মাধ্যমে বাংলাদেশ থেকে প্রথমে আলজেরিয়া যান আবু আশরাফ। সেখান থেকে প্রায় ২০ দিন আগে মরক্কোতে পাড়ি জমান।

মরক্কো থেকে গত সোমবার সাগর পথে স্পেনের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন আবু আশরাফ। এর ১দিন পূর্বে গত রবিবার যাত্রার বিষয়টি নিশ্চিত করে তিনি ইমুতে পরিবারের কাছে ভয়েস রেকর্ড পাঠান। এরপর থেকে আবু আশরাফের সাথে পরিবারের যোগাযোগ বন্ধ হয়ে যায়।

দক্ষিণ আফ্রিকাতে থাকা তার খালাতো ভাই গত মঙ্গলবার সকালে ফোন করে দেশে থাকা স্বজনদের জানান মরক্কো থেকে সাগরপথে স্পেন যাওয়ার সময় আবু আশরাফদের বহনকারী নৌকাটি ডুবে গেছে। পরবর্তীতে বৃহস্পতিবার (২৮ নভেম্বর) দুপুরে স্পেনে থাকা এক আত্মীয় ফোন করে পরিবারকে নিশ্চিত করেন, সাগরে নৌকা ডুবিতে সলিল সমাধি হয়েছে আবু আশরাফের এবং তার লাশ স্পেনের মেরিলা শহরের একটি হাসপাতালে রয়েছে।

এদিকে, আবু আশরাফের মর্মান্তিক মৃত্যুতে তার পরিবারের বিরাজ করছে শোকের মাতম। মা-বাবা, ভাই-বোন ও স্বজনদের আহাজারীতে ভারী হচ্ছে পরিবেশ। বিশেষ করে প্রিয় সন্তানকে হারিয়ে তার গর্ভধারিণী মা কান্না করতে গিয়ে বার বার মুর্চ্ছা যাচ্ছেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, তাদের লাশ দেশে আনার জন্য চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত দু’দিন পূর্বে বড়লেখা উপজেলার জাকির হোসেন ও জালাল উদ্দীন নামে দুই তরুণের মৃত্যু হয়। দুই তরুণের একইভাবে দালালের খপ্পরে পড়ে অবৈধ ভাবে মরক্কো থেকে স্পেনে যাওয়ার পথে নৌকা ডুবে সলিলসমাধি হয়।