আয়কর, ভ্যাট ও শুল্কের চালান জমা দেওয়ার সুবিধার্থে ঈদের পর শুক্রবার ব্যাংক খোলা রাখার নির্দেশ দিয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে কোন শাখাগুলো খোলা থাকবে তা ব্যাংকগুলো নিজেরাই ঠিক করবে। এ ছাড়া এফবিসিসিআই-এর অনুরোধে ঈদের আগে শনিবার সব বাণিজ্যিক এলাকা, জেলা শহর ও বড় শপিং মার্কেট এলাকার ব্যাংক শাখা খোলা রাখতে বলা হয়েছে। বৃহস্পতিবার আলাদা দুটি সার্কুলারের মাধ্যমে এসব নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

এর আগে গত মঙ্গলবার জারি করা এক সার্কুলারে ঈদের আগে শুক্র, শনি ও রোববার বন্ধের মধ্যেও সীমিত পরিসরে বিভিন্ন এলাকায় ব্যাংক শাখা খোলা রাখার নির্দেশ দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। বিভিন্ন এলাকায় তৈরি পোশাক সংশ্লিষ্ট শাখা, বেশি রেমিট্যান্স আসে এমন শাখা এবং কাস্টম হাউজ ও কাস্টমস স্টেশন সংশ্লিষ্ট শাখা খোলা রাখতে বলা হয়।

বৃহস্পতিবার জারি করা একটি সার্কুলারে বলা হয়েছে, করদাতাদের আয়কর, ভ্যাট ও শুল্কের চালান জমা বা পে-অর্ডার সুবিধা দেওয়ার লক্ষ্যে সংশ্লিষ্ট শাখাগুলো আগামী ৩০ জুন শুক্রবার খোলা রাখতে হবে। অপর এক সার্কুলারে বলা হয়েছে, সুষ্ঠু ব্যবসায়িক কার্যক্রম ও নিরাপদ আর্থিক লেনদেনের সুবিধার্থে দেশের সব বাণিজ্যিক এলাকা, জেলা শহর ও বৃহৎ শপিং মার্কেট এলাকার ব্যাংকের সংশ্লিষ্ট শাখাসমূহ আগামী শনিবার খোলা রাখতে হবে।

নির্দেশনার আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সব ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকদের (এমডি) কাছে বৃহস্পতিবারই এসব সার্কুলার পাঠানো হয়েছে।

গত মঙ্গলবার জারি করা একটি সার্কুলারে বলা হয়, আমদানি-রফতানি সচল রাখতে আগামী ২৩ থেকে ২৫ জুন সকল কাস্টম হাউস ও কাস্টমস স্টেশন চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। ব্যাংক লেনদেনের সুবিধার্থে এই তিন দিন সকল এডি শাখার পাশাপাশি কাস্টম হাউস ও কাস্টমস স্টেশন সংশ্লিষ্ট সকল শাখা খোলা রাখতে হবে।

অপর সার্কুলারে বেশি রেমিট্যান্স আসে এমন সব শাখা আগামী ২৪ জুন শনিবার খোলা রাখতে বলা হয়। আরেক সার্কুলারে বলা হয়, তৈরি পোশাকশিল্পে কর্মরতদের বেতন, বোনাস ও অন্যান্য ভাতা পরিশোধের সুবিধার্থে আগামী ২৩ ও ২৪ জুন ঢাকা মহানগরী, আশুলিয়া, টঙ্গী, গাজীপুর, সাভার, নারায়ণগঞ্জ, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, ময়মনসিংহ ও টাঙ্গাইলে অবস্থিত তৈরি পোশাকশিল্প সংশ্লিষ্ট সব শাখা খোলা রাখতে হবে।