লিবিয়া থেকে ইউরোপ যাওয়ার উদ্দেশ্যে পাঁচ দিন পূর্বে যাত্রা শুরু করেছিলেন বিয়ানীবাজারের ইমন। শনিবার পর্যন্ত পরিবারের সাথে তার কোন যোগাযোগ হয়নি। পরিবার থেকে জানানো হয় ইমন নিখোঁজ রয়েছেন। এদিকে আজ সোমবার দুপুরে ৭১ টিভির এক প্রতিবেদনে ইমন মারা যাওয়ার বিষয়টি জানানো হয়। প্রত্যক্ষদর্শী আকবর হোসেনের বরাত দিয়ে প্রচার করা প্রতিবেদনের সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ইমনের ছোট ভাই স্বপন।  তিনি বলেন, সাগর থেকে উদ্ধার হওয়া পাঁচ বাংলাদেশী জানিয়েছেন তাদের উদ্ধার তৎপরতায় আমার ভাই ইমন সহযোগিতা করেছেন। উপকুলে স্থানীয় কোস্টগার্ড আসার পর উদ্ধার হওয়াদের বিভিন্ন হাসপাতালে নিয়ে যায়। ইমন এরকম কোন হাসপাতালে রয়েছেন। সুস্থ হলে নিশ্চয় পরিবারের যোগাযোগ করবেন।

৭১ টিভির এ প্রতিবেদনে ৩৫ বাংলাদেশী নিহত ও নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি জানানো হয়েছে। ইমনের নিকটাত্মীদের অনেকেই গত শনিবার বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪কে ইমনের মারা যাওয়ার বিষয়টি শুনেছেন বলে জানান। তবে তারা বিষয়টি শতভাগ নিশ্চিত হয়ে বলতে পারেননি। কোন প্রত্যক্ষদর্শীর নাম বলতেও পারছিলেন না এসব নিকাত্মীয়। আজ সোমবার ৭১ টিভির প্রতিবেদনের ইমনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার সহযোগী আকবর হোসেন। তবে ইমন মারা যাননি- নিখোঁজ হয়েছেন জানিয়েছেন তার ছোট ভাই হাসানুর রশিদ স্বপন।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত বছর ইমনের ছোটভাই পানিতে ডুবে মারা যায়। এক বছরের মধ্যে সাগরে ডুবে ইমন নিখোঁজের বিষয়টি পাওয়ার পর থেকে পরিবারের সদস্যরা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। তাদের শান্তনা জানাতে ছুটে আসছেন আত্মীয় স্বজনরা। স্বজনদের পাশাপাশি প্রতিবেশীরা ছুটে এসে শান্তনা দিচ্ছেন।

বিয়ানীবাজার উপজেলার ফতেহপুর গ্রামের ক্বারী আব্দুল খালিকের ছেলে হারুনুর রশীদ ইমন (৩০)। চারভাই দুই বোনের মধ্যে সে দ্বিতীয়। সংসারে সুদিন ফেরাতে লিবিয়া হয়ে ইউরোপের স্বপ্নে বিভোর ইমন দালালের মাধ্যমে প্রায় তিনমাস পূর্বে লিবিয়ায় পাড়ি জমান।

ইমনের নিভোঁজ হওয়ার খবর পেয়ে স্বজনদের শান্তনা জানাতে ছুটে যান বিয়ানীবাজার পৌরসভার মেয়র আব্দুস শুকুর, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাকির হোসেনসহ অনেকেই।

ইমনের ছোট ভাই ঝুমন এ প্রতিবেদককে জানান, তিনমাস পূর্বে এক দালালের মাধ্যমে লিবিয়ায় পাড়ি জমান তার। এতোদিন থেকে তিনি লিবিয়ায় ছিলেন। তাদের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ হতো। দালালরা বড় নৌকায় সাগর পাড়ি দেয়ার কথা বলে মোটা অংকের টাকা নিলে ছোট প্লাস্টিক নৌকায় উঠিয়ে দেয়া হয় ইমনকে। এতে সাগড়ে নৌকাটি দুর্ঘটনায় পড়ে।