প্রচারণা ক্ষেত্রে মাইকের ব্যবহার এখনো ব্যবসায়ীদের কাছে অনেক আস্থার। আর এ কারণে শব্দ দূষণ মাত্রারিক্তভাবে বেড়ে চলেছে। শব্দ দূষণের ক্ষেত্রে মাইকের পাশাপাশি গাড়ি হাইড্রলিক হর্ণও মারাত্মক প্রভাব ফেলেছে জনজীবনে।

প্রবাসী  অধ্যুষিত বিয়ানীবাজার পৌরশহরে দেশের অন্য মফস্বল শহরের চেয়ে ব্যক্তিগত গাড়ি, অভিজাত বিপনি ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান অনেক বেশি। রমজান মাসে মাইক বাজিয়ে ধর্মীয় শিক্ষা চর্চা, মাইক ও স্পিকার বাজিয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের প্রচার-প্রচারণা চালানো, মোবাইল কোম্পানির সিম বিক্রি ও ঈদের বাজারে আসা ব্যাক্তিগত গাড়ি ও গণপরিবহনের হর্ণের শব্দে অতিষ্ঠ বিয়ানীবাজারবাসী।

সরেজমিনে দেখা যায়, পৌরশহরে প্রতিদিন প্রায় ১০ থেকে ১২টি  গাড়ি মাইক নিয়ে বিভিন্ন ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান প্রতারণামূলক শ্লোগান নানা অফার, ডাক্তারদের পরিচিতি মূলক প্রচারনা, প্রশাসন ও ব্যবসায়ীদের প্রচারণা বাড়ছে দেদারছে। এতে প্রতিনিহত মানুষজন নানা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। বধির হওয়া থেকে শুরু করে মাথায় বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। বিশেষ করে স্কুল ও কলেজগামী শিক্ষার্থীদের উপর এর মারাত্মক প্রভাব পড়ছে।

ব্যাংকে টাকা উত্তোলন করতে আসা পারভীন আক্তার জানান, তাঁর স্বামী বিদেশ থেকে পিন নাম্বারে টাকা পাঠিয়েছেন। লিখতে গিয়ে তিনি একটি নম্বর ভুল করায় টাকা তুলতে পারছেন না। পুনরায় পিন নম্বর নিয়ে আসতে তিনি স্বামীকে মুঠোফোনে কল করেন।  প্রায় আধঘন্টা পর তার মুঠোফোনে কল আসলে তিনি মাইকের অতিরিক্ত শব্দের কারণে কিছু শুনতে পারেননি। অগত্যা তাকে আগামীকাল আবার আসতে হচ্ছে। পারভীন বলেন, দেশ এগিয়ে যাচ্ছে, অথচ বিজ্ঞাপনের জন্য মানুষ এখনও মাইক চালায়। আরকি কোন মাধ্যম নেই?

আব্দুল জলিল নামের এক প্রবীন বলেন- ‘বাবা রোজা মাসও শান্তি নাই। খালি আওয়াজ আর আওয়াজ। রাস্তার খান্দত বাড়ি মাইকের আওয়াজর লাগি কুরআন শরীফ  পড়াত বইলেও পড়তে অসুবিধা অয়’।

পৌরশহরের মোকাম রোর্ডে ৮/১০ বছরের এক কিশোরের গাড়ির হর্ণ এর কারনে কানে হাত দিয়ে দাড়িয়ে যায়। তাকে এসময় খুব আতংকিত মনে হয়েছে। শুধু শহর নয় শব্দ দূষণের এ মাত্রা গ্রামের হাট-বাজার এলাকাসহ সর্বত্র ছড়িয়ে পড়ছে।

সোস্যাল  ওরগাইজেশনের সভাপতি সাহাব উদ্দিন মাওলা বলেন, তথ্য প্রযুক্তির এ যুগে প্রচার প্রচারণার নানা ম্যাধম থাকা সত্তেও কেন জানি মানুষ যুগ যুগ আগের এ দূষণকারী প্রচার ম্যাধমকে বেঁচে নেয়। প্রচারণার অনেক মাধ্যম রয়েছে। ফেসবুকে পেইজ খুলে আপনি পণ্যের বিষয়ে প্রচারণা চালাতে পারেন।

বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ মসজিদের ছানি ঈমাম মাওলানা মোসাইদ আহমদ বলেন, ধর্মীয় দ্বীনের শিক্ষা প্রচার সেই আদিকাল থেকে। তবে লক্ষ্য রাখা উচিত যাতে অন্যের বড় কোন সমস্যা না হয়।

নাক, কান, গলার ডাক্তার কাজি আক্তার হোসেন বলেন,  অতি উচ্চ মাত্রায় শব্দ দূষণের ফলে যে কোন বয়সে মানুষের শাররীক ও মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে শিশুদের মধ্যে এ ঝুঁকি বেশি।

বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মু: আসাদুজ্জমান জানার,  প্রচার প্রচারণার ক্ষেত্রে নিদিষ্ট নীতিমালা রয়েছে। ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান এ আইন ভাঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে ধর্মীয় বিষয়টা আলাদা।