আফজল। মাত্র ১৯ বছরের এক কিশোর। দু’চোখে একরাশ স্বপ্ন নিয়ে, উন্নত জীবন আর পরিবারকে আর্থিক স্বাচ্ছন্দ্য প্রদানের দায়িত্ব কাঁধে নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিল। চরম দারিদ্র্যের মধ্যে বেড়ে ওঠা পরিবারের বড়ছেলে আফজল কৈশোরেই পিতৃহীন হওয়ার পর মা আর ছোট-ভাইবোনদের বড় দায়িত্ব তার ছোট কাঁধে এসে পড়ে। যুক্তরাষ্ট্রে অভিবাসী হয়ে দেশে থাকা মা আর ভাই-বোনদের অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান আর শিক্ষার নিশ্চয়তার জন্য আফজল নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছিল।

মাত্র দু’বছর আগে সামিয়াকে বিয়ে করে নভেম্বর মাস থেকে নিজবাড়িতে সংসার শুরু করেছিল আফজাল। নিজের বুকে লালিত স্বপ্নকে বাস্তবে রূপায়নের জন্য আফজল নিরন্তর পরিশ্রম করে যাচ্ছিল যাতে করে সে তার নতুন বাড়ি আর দেশে থাকা মা আর ভাই-বোনদের জন্য যথেষ্ট পরিমাণ সঞ্চয় করতে পারে। তাদের মুখে হাসি ফুটাতে পারে। কিন্তু আফজালের সেই স্বপ্ন হঠাৎ স্তব্ধ হয়ে গেছে। বৈশ্বিক মহামারী কোভিড-১৯ তার সেই স্পনের অভিযাত্রাকে স্তব্ধ করে দিয়েছে। জীবন-সংগ্রামের যুদ্ধে ঠিকে থাকলেও কোভিডের সাথে পেরে উঠে নি আফজাল। গত ৩ জানুয়ারি সকাল সাড়ে ৭টায় মাত্র ২৬ বছরে থেমে যায় আফজলের দেহঘড়ি।

আফজাল চলে গেছে পরকালে, কিন্তু পেছনে রেখে গেছে প্রিয়তমা স্ত্রী, দুঃখিনী মা, প্রিয় ভাইবোন, বন্ধু-বান্ধব আর শুভার্থীদের। আফজলের এই চলে যাওয়া তার পরিবারের জন্য এক মহাদুর্যোগ বয়ে এনেছে। তার দাফন কাফন আর পরিবারের আর্থিক নিরাপত্তার জন্য অনেক অর্থের প্রয়োজন। এই কঠিন সময়ে আন্তরিকতার সঙ্গে আফজালের পরিবারের প্রতি সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য একটা ফান্ড রাইজিং ক্যাম্পেইন শুরু করা হয়েছে।

ফান্ডে সহযোগিতার জন্য সকল প্রবাসীদের প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাণ হচ্ছে। ফান্ড রাইজিংয়ে সংগৃহীত অর্থ তার ফিউনারেল সংশ্লিষ্ট ব্যয় নির্বাহ এবং তার পরিবারের নিরাপত্তার জন্য ব্যয় করা হবে। আর এতে এই ফান্ডে সহযোগিতার হাত প্রসারিত করে আফজলের প্রতি অফুরান ভালবাসার বহিঃপ্রকাশ ঘটাতে সামিল হওয়ার আহবান জানিয়েছেন ফান্ড রাইজিংয়ের হোস্ট তানভির হোসাইন।

আফজালের পরিবারের পাশে দাঁড়াতে নিচের লিংকে ক্লিক করে ডোনেট করতে পারেনPlease help support Afzol’s Family

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

কমিটি ছাড়াই ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করলো বিয়ানীবাজারের ছাত্রলীগ