আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ইসলামী চিন্তাবিদ, আল্লামা মুফতি মুজাহিদ উদ্দীন চৌধুরী দুবাগী ছাহেব কিবলাহ (রহ.)’র ২য় বার্ষিক ঈসালে সাওয়াব মাহফিল লন্ডনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (১৭ জুলাই) সকাল ১০টায় মাজার জিয়ারতের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ঈসালে সওয়াব মাহফিল শুরু হয়। দিনব্যাপী খতমে কুরআন, খতমে খাজেগান, খতমে দালাইলুল খাইরাত ও যিকির মাহফিলের পাশাপাশি স্মৃতিচারণমূলক আলোচনায় অত্যন্ত ভাবগম্ভীর পরিবেশে অতিবাহিত হয়।

লন্ডনের ঐতিহ্যবাহী ব্রিকলেন জামে মসজিদে আল্লামা দুবাগী (রহ.) ঈসালে সাওয়াব মাহফিল কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত মাহফিলে সভাপতিত্ব করেন তাঁর বড় পুত্র আল্লামা জিল্লুর রহমান চৌধুরী।

মাওলানা ওলিউর রহমান চৌধুরী দুবাগী ও মাওলানা আমিনুল ইসলামের যৌথ পরিচালনায় শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তিলাওয়াত করেন দুবাগী ছাহেবের ছোট পুত্র ক্বারী মাহবুবুর রহমান চৌধুরী। যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন শহর থেকে তীব্র গরম উপেক্ষা করে নানা দেশের প্রখ্যাত আলিম উলামা, মুরীদীন, মুহিব্বীন ও সর্বস্তরের জনসাধারণ উপস্থিত ছিলেন।

আল্লামা দুবাগী ছাহেব রহমতুল্লাহ আলাইহির আলোকিত জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন, মিনহাজুল কোরআন ইন্টারন্যাশনাল লন্ডন এর ডাইরেক্টর আল্লামা সাদিক কোরেশী আল-আজহারী, মুফতি সৈয়দ মাহমুদ আলী, মিয়ারবাজার মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা আব্দুল মুক্তাদির খান, ইলফোর্ড ইসলামিক সেন্টারের খতিব আল্লামা খুররাম রফিক, লন্ডন দারুল হাদিস লতিফিয়া গভর্ণিং বডির চেয়ারম্যান শায়খুল হাদীস আল্লামা আব্দুল জলিল, মুহিউল ইসলাম মসজিদের খতীব আল্লামা শের আহমদ বারকাতি, খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা আব্দুল কাদির সালেহ, লন্ডন দারুল হাদিস লতিফিয়ার সাবেক প্রিন্সিপাল মুফতি ইলিয়াস হোসেন, ফাইজানে ইসলাম মসজিদের খতীব আল্লামা সানাউল্লাহ ছেটি, যুক্তরাজ্য আঞ্জুমানে আল-ইসলাহর সভাপতি মাওলানা নজরুল ইসলাম, লন্ডন মাজাহিরুল উলুম মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা এমদাদুর রহমান আল-মাদানী, নূরে মদীনা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মাওলানা শফিকুর রহমান বিপ্লবী, বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব ইকরা টিভি লন্ডনের আলোচক ও ‘জামেয়াতুল খাইর আল ইসলামিয়া সিলেট’ এর প্রতিষ্ঠাতা মুফতি আব্দুল মুন্তাকিম, লতিফিয়া উলামা সোসাইটির সভাপতি মাওলানা শিহাব উদ্দিন, লেস্টার দারুস সালাম মসজিদের খতিব হাফিজ মাওলানা আব্দুল জলিল, ওল্ডহাম শাহ পরান মসজিদের খতিব মাওলানা ফখরুল ইসলাম, আছিরগঞ্জ মাদ্রাসার সাবেক সুপার মাওলানা আব্দুস সবুর, ঢাকা দারুন্নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদ্রাসার আরবি প্রভাষক মাওলানা নুরুল ইসলাম, লন্ডন আল-ইসলাহ ডিভিশনের সহ-সভাপতি মাওলানা আব্দুল কুদ্দুস, মাওলানা আব্দুল আজিজ, ক্বারী গোলাম আজম প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, আল্লামা মুফতি মুজাহিদ উদ্দিন চৌধুরী দুবাগী ছাহেব রহ. ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী অসাধারণ এক ব্যক্তিত্ব। জন্মভূমি বাংলাদেশে অবস্থানকালে ইলম অর্জনের পর বিভিন্ন মাদরাসায় প্রিন্সিপাল, শায়খুল হাদীস ও মুফতী ছিলেন। তিনি বহু আলেমের প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ শিক্ষক।

বিলাতে পাড়ি দেয়ার পর লেস্টার দারুসসালাম মসজিদ ও নিউক্রস জামে মসজিদ এবং ব্লাকবার্ন শাহ জালাল জামে মসজিদ প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি ছিলেন ইউকে ওলামা সোসাইটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং ১৯৮০ সালে সৈয়দপুরের ঘটনার পর ইউকে আঞ্জুমানে আল-ইসলাহ প্রতিষ্ঠা করেন। এছাড়াও তিনি দেশে বিদেশে অসংখ্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠার পিছনে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ অবদান রেখেছেন।

মুনাযীরে আযম আল্লামা দুবাগী ছাহেব (রহ.) বিলাতবাসী মুসলমানদের আমন্ত্রণে ১৯৭৮ সালের ১ জানুয়ারি লেস্টার শহরে গমন করেন। যুক্তরাজ্যে তিনি সর্বপ্রথম জৈনপুরী/ফুলতলী মসলকের ভিত্তিস্থাপন করেন, তাঁর পূর্বে বিলাতে এ মসলকের কোন আলিম উলামা ছিলেন না।

একই বৎসর ১৯৭৮ সালের ২ জুন শামছুল উলামা হযরত আল্লামা ফুলতলী ছাহেব কিবলাহ (রহ.) প্রথমবারের মত ব্রিটেন সফর করেন। দুবাগী ছাহেব বিলেতবাসীকে সংগঠিত করে ফুলতলী ছাহেব কিবলাহকে ব্রিটেনে এক ঐতিহাসিক অভ্যর্থনা জানান। আল্লামা দুবাগী ছাহেব (রহ.) জনগণকে উৎসাহ উদ্দীপনা দিয়ে যুক্তরাজ্যের প্রত্যেক এলাকায় ফুলতলী ছাহেবের ওয়াজ মাহফিলের ব্যবস্থা করেন। তিনি ফুলতলী ছাহেবের এ সফরকে সফল করার জন্য বাংলা, ইংরেজী, উর্দু, হিন্দী ও গুজরাটি ভাষায় সর্বাধিক প্রচার প্রচারণা করেন। এই সফরেই দুবাগী ছাহেব স্বীয় পীর ও মুর্শিদ আল্লামা ছাহেব কিবলাহ ফুলতলী (রহ.)’র সাথে ব্রিটেনে মুসলমানদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মের দ্বীনি শিক্ষার কথা আলোচনা করে মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠা করার প্রস্তাবনা ও পরিকল্পনা পেশ করেন। ফুলতলী ছাহেব এ সফরেই লন্ডনে মাদ্রাসার ভিত্তিস্থাপন করেন, তখন এই মাদ্রাসার নাম ছিল মাদ্রাসা-এ-দারুল ক্বিরাত মজিদিয়া। পরবর্তীতে এই মাদ্রাসার নাম করণ হয় লন্ডন দারুল হাদীস লতিফিয়া।

ব্রিটেনে বসবাসকারী আজকে অনেক প্রতিষ্ঠান, অনেক মুবাল্লিগ অনেক মুফাককীর, অনেক ইসলামী চিন্তাবিদ এবং ব্রিটেনে ইসলামী কার্য্যক্রম তুলনামূলকভাবে অনেকাংশে বেশী বলা যায়। কিন্তু যখন এ মসলকের কেউ ছিলেন না। কোন মসজিদ ছিল না। কোন মাদ্রাসাও ছিল না। সে সময় ব্রিটেনে প্রতিষ্ঠানের চিন্তা তথা মানুষকে শরয়ী বিধান জানানোর জন্য আত্মত্যাগ করেছেন, তাদের মধ্যে একজন অন্যতম পুরোধা হলেন হযরত আল্লামা মুজাহিদ উদ্দিন চৌধুরী দুবাগী ছাহেব রহমতুল্লাহি আলাইহি।

আল্লামা দুবাগী ছাহেব (রহ.) তাঁর কর্ম জীবন এর একটা বড় অংশ ব্রিটেনের লেস্টার শহরের দারুস সালাম মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা এবং খতীব হিসেবে কাটিয়েছেন বলে ব্রিটেনে তিনি ‘লেস্টারের ছাহেব’ নামে সুপরিচিত ছিলেন। ব্রিটেনে দুবাগী ছাহেবের কারণে লেস্টারই ছিল ফুলতলী মসলকের হেডকোয়াটার্স বা প্রধান কেন্দ্র। ব্রিটেনে এই লেস্টার শহরেই ফুলতলী ছাহেব সর্বপ্রথম গমন ও অবস্থান করেছিলেন, প্রথমে লেস্টারেই ভবিষ্যতের সকল মসজিদ মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠার পরিকল্পনা করা হয়। দুবাগী ছাহেবের নেতৃত্বে এ মছলকের সকল কাজ কর্ম পরিচালিত হত এবং ইউকে আঞ্জুমানে আল-ইসলাহ লেস্টারেই ১৯৮০ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল।

তিনি ছিলেন ব্রিটেনে আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের এক বর্ষীয়ান দিকপাল। আহলে সুন্নাত ওয়াল জামাতের আকিদা বিশ্বাস প্রচার ও প্রসারে তাঁর অবদান মুসলিম উম্মাহ সর্বদা মনে রাখবে। এ মহান বুজুর্গ পরিপূর্ণভাবে শরিয়তের অনুসারী ছিলেন। ব্রিটেনে দীর্ঘ ৪২ বৎসর ওয়াজ নসীহত, মুনাজিরা ও লেখনীর মাধ্যমে তিনি দ্বীনের সঠিক শিক্ষা প্রচার ও প্রসারে আমৃত্যু চেষ্টা করে গেছেন।

মুফতিয়ে আযম হযরত আল্লামা দুবাগী ছাহেব (রহ) মাসআলা-মাসায়েল সম্পর্কে বিস্মিত হবার মত প্রগাঢ় জ্ঞানের অধিকারী ছিলেন। যে কোন কঠিন মাসআলায় তাঁর দালিলিক সমাধান সর্বদলীয় ওলামায়ে কেরামের কাছে ঐক্যমতে গ্রহণযোগ্য ছিল। বিভিন্ন শহর থেকে ইমাম ও খতীবগণ তাঁর খেদমতে হাজির হয়ে জঠিল মাসাআলাগুলোর সমাধান জানতে চাইতেন। নিয়মিত তিনি কোরআন, হাদীস ও কিতাব চর্চা করতেন। তিনি অসংখ্য দেশ সফর করেছেন। আরবী, উর্দু ও ফার্সি ভাষায় তাঁর অগাধ পান্ডিত্য ছিল এবং এসব ভাষায় অনর্গল বক্তৃতা দিতেন।

বক্তারা আরো বলেন, আল্লামা দুবাগী ছাহেব (রহ.)’র মৃত্যুর মধ্য দিয়ে শেষ হয়ে যাননি। আল্লাহর মহিমায় তিনি তাঁর অবিস্মরণীয় কীর্তির মধ্য দিয়ে চির জাগরুক থাকবেন। যত দিন তাঁর তৈরী মসজিদ, মাদ্রাসা ও লেখনী থাকবে। ততদিন ইট পাথর থেকে শুরু করে প্রতিটি ধুলিকণা তাঁর বিরহে কাঁদবে স্মরণ করবে তাঁর মেহনতকে।
সর্বশেষে এ মহতী অনুষ্ঠানে মিলাদ পাঠান্তে দোয়া পরিচালনা করেন দুবাগী ছাহেবের বড় পুত্র আল্লামা জিল্লুর রহমান চৌধুরী দুবাগী।