সড়ক, জনপথ ও সেতুমন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, বর্তমান সরকার জনবান্ধব। দেশের বিভিন্ন জায়গায় সাম্প্রতিককালে ক্ষতিগ্রস্ত হাওর এলাকার মানুষের মধ্যে নগদ টাকাসহ চাল বিতরণ কর্মসূচি চলমান রয়েছে। এরই প্রেক্ষিতে বড়লেখা-জুড়ীতে ক্ষতিগ্রস্ত হাকালুকি হাওরপারের মানুষকে চাল ও নগদ টাকা সহায়তা হিসেবে প্রদান করা হচ্ছে। ক্ষতিগ্রস্ত লোকদের কথা বিবেচনা করে সংশ্লিষ্ট দপ্তরের মন্ত্রীর সাথে আলাপ করে আগামী ফসল ওঠা না পর্যন্ত ক্ষতিগ্রস্ত প্রত্যেক পরিবার ৩০ কেজি করে চাল ও নগদ ৫০০ টাকা হারে টাকা পাবে।

মঙ্গলবার (০৯ মে) দুপুরে মৌলভীবাজারের বড়লেখা ও জুড়ীতে ৬০০ পরিবারের মধ্যে মোট ১২ হাজার কেজি চাল ও নগদ ৩ লক্ষ টাকা বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী অফিসার আবদুল্লাহ আল মামুনের সভাপতিত্বে ও তালিমপুর ইউপি চেয়ারম্যান বিদ্যুত কান্তি দাসের উপস্থাপনায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও বড়লেখা-জুড়ী আসনের এমপি আলহাজ¦ শাহাব উদ্দিন, মৌলভীবাজার জেলা পরিষদ প্রশাসক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক আশরাফুর রহমান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক নেছার আহমদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এসএম জাকির হোসাইন প্রমুখ। এছাড়াও স্থানীয় আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

প্রচন্ড ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে মন্ত্রী হাকালুকি হাওরপারে অবস্থিত হাকালুকি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সড়কপথে এসে পৌঁছান। এ সময় প্রবল ঝড়ে মঞ্চস্থল ল-ভ- হয়ে যায়। তিনি হেলিকপ্টারযোগে সুজানগর হ্যালিপ্যাডে অবতরণ করে সড়কপথে জুড়ী উপজেলার নিরোদ বিহারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দেন। অনুষ্ঠানে জায়ফরনগর ও পশ্চিম জুড়ী ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত ৩০০ এবং বড়লেখা উপজেলার তালিমপুর, সুজানগর ও বর্ণি ইউনিয়নের ক্ষতিগ্রস্ত ৩০০ পরিবারহ মোট ৬০০ পরিবারের মধ্যে  ২০ কেজি করে চাল ও নগদ ৫০০ টাকা বিতরণ করা হয়। এরপর মন্ত্রী বড়লেখা ডাকবাংলো রেস্ট হাউজে মধ্যাহ্নভোজ করে ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। এ সময় হাকালুকি-বড়লেখা সড়কের বেহাল অবস্থা দেখে মন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করেন।