বিনম্র শ্রদ্ধা, যথাযোগ্য মর্যাদা ও ভাবগাম্ভীর্যপূর্ণ পরিবেশে মৌলভীবাজারের বড়লেখায় ‘‘মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস’’ পালন শুরু হয়েছে। স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে শুরু হয় স্বাধীনতা দিবসের আনুষ্ঠানিকতা।

একাত্তরের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে শুক্রবার (২৬ মার্চ) প্রত্যুষে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের ঢল নামে বড়লেখা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় শহীদ মিনারে।

শুরুতে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বড়লেখা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ ও বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামীম আল ইমরান।

এরপর বড়লেখা জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আদালতের হাকিম হরিদাস কুমার, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুসরাত লায়লা নীরা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, বাংলাদেশ পুলিশ বড়লেখা থানা, বড়লেখা পৌরসভা, বড়লেখা উপজেলা আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ এবং সহযোগী সংগঠন, উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, বড়লেখা প্রেসক্লাবসহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, শিক্ষক সংগঠন, রাজনৈতিক দল, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন ও সাধারণ মানুষ শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

শহীদ মিনারে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়।

নীরবতা পালন শেষে শহীদ মিনারে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন বড়লেখা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামীম আল ইমরান।

উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ তাজ উদ্দিনের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সোয়েব আহমদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) রফিকুল ইসলাম সুন্দর, বড়লেখা পৌরসভার মেয়র আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী প্রমুখ।

এদিকে উপজেলার সরকারি ও বেসরকারি ভবনে উত্তোলন করা হয়েছে জাতীয় পতাকা। সকাল ৮টায় বড়লেখা পাথারিয়া ছোটলিখা সরকারি মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কুচকাওয়াজ ও শারীরিক কসরত প্রদর্শনের আয়োজন করা হয়।

এ ছাড়া যথাযোগ্য মর্যাদায় স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের লক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিসুস্থ জীবনে ফিরতে চান ক্যান্সারে আক্রান্ত বিয়ানীবাজারের শফিক, সহযোগিতা কামনা