মৌলভীবাজারের বড়লেখা পৌরসভা নির্বাচনের ভোট গ্রহণ চলছে। আজ সোমবার সকাল ৮টায় ভোট শুরু হয়েছে। চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। পৌরসভায় মোট ভোটার ১৫ হাজার ৪৪৩ জন। ১০টি ভোটকেন্দ্রে ইভিএমের মাধ্যমে ভোট নেওয়া হচ্ছে। সকাল সাড়ে ১০টায় এ সংবাদ লেখা পর্যন্ত পৌরসভার কোথাও অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বর্তমান মেয়র আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী, ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে পৌর বিএনপির সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম ও মুঠোফোনে প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মো. সাইদুল ইসলাম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৬ জন ও নারী কাউন্সিলর পদে ১১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

সকালে ভোট গ্রহণের শুরুতে কেন্দ্রগুলোয় ভোটার উপস্থিতি ভালো ছিল। পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটারের উপস্থিতি ছিল সবচেয়ে বেশি। ভোটকেন্দ্রগুলোর বাইরে প্রার্থীদের সমর্থকদের উপস্থিতি চোখে পড়ার মতো।

সকাল ৮টায় পাথারিয়া ছোটলিখা মডেল সরকারি উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট দেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী আবুল ইমাম মো. কামরান চৌধুরী। ভোট দেওয়ার পর সাড়ে ৯টায় তিনি বলেন, ‘মানুষ উৎসব আমেজে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট দিচ্ছে। ৪টি কেন্দ্র দেখেছি। ভোটার উপস্থিতি ভালো ছিল। ইনশাল্লাহ আমি বিজয়ী হব।’

বিএনপির প্রার্থী আনোয়ারুল ইসলাম গাজিটেকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দেন। তিনি সকাল ১০টা ২৫ মিনিটে বলেন, ‘২ থেকে ৩টি সেন্টারে ঘুরেছি। এখন পর্যন্ত কোনো সমস্যা চোখে পড়েনি।’

স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সাইদুল ইসলাম গাজিটেকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভোট দেন। মুঠোফোনে তিনি অভিযোগ করেন, ‘একটি সেন্টারে আমার এজেন্ট বের করে দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে।’

সিংহ গ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন পাখিয়ালা গ্রামের সুলতানা আক্তার (৬৫)। তিনি জানান, ইভিএম পদ্ধতিতে সহজেই ভোট দেওয়া যায়। ৪-৫ মিনিট সময় লাগে। কেউ দেখিয়ে দিলে আরও সহজ হয়।’

ওই কেন্দ্রের প্রিজাইডিং অফিসার দেবল সরকার জানান, ভোট কেন্দ্রে ভোটার রয়েছেন ১৪৪৪। তার মধ্যে সকাল ১০টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ১৮০টি।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারি রির্টার্নিং কর্মকর্তা সাদিকুর রহমান সকাল সাড়ে ১০টায় মুঠোফোনে বলেন, ‘আড়াই ঘন্টা ভোট সম্পন্ন হয়েছে। উৎসব মুখর পরিবেশে ভোটাররা ভোট দিচ্ছেন। এখনো কোনো বিশৃঙ্খলার খবর পাওয়া যায়নি। কোনো কেন্দ্র থেকে অপ্রীতিকর ঘটনার খবর কিংবা অভিযোগ আসেনি।’

প্রসঙ্গত, প্রথম ধাপে আগামী ২৮ ডিসেম্বর ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে বড়লেখা পৌরসভার ভোট গ্রহণ হচ্ছে। নির্বাচন উপলক্ষে সবধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে প্রশাসন। এসব কেন্দ্রে নির্বাচনী সরঞ্জাম পৌঁছানোর পাশাপাশি নিরাপত্তা ব্যবস্থাও জোরদার করা হয়েছে। বড়লেখা পৌরসভার নয়টি ওয়ার্ডে মোট ভোটার ১৫ হাজার ৪৪৩ জন। এরমধ্যে পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৫২৩ জন ও মহিলা ভোটার হলেন ৭ হাজার ৯২০ জন। নয়টি সাধারণ ও তিনটি সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ভোট গ্রহণের জন্যে ১০ টি ভোটকেন্দ্র এবং ৪৩টি ভোটকক্ষ রয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

ইউপি নির্বাচন নিয়ে 'এবি টিভি'র বিশেষ আয়োজন ‘ভোটের হাওয়া’।। ৮ম পর্বে দুবাগ ইউনিয়ন