বড়লেখার সদর ইউনিয়ন আনজুমানে আল-ইসলাহ’র সভাপতি মাওলানা নূর উদ্দিনের ওপর পূর্ব শত্রুতার জেরে প্রতিপক্ষ পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছে। এতে ভাগ্না গৌছ উদ্দিনসহ তিনি গুরুতর আহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় উপজেলার অজমীর এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। হামলার ঘটনায় আহত মাওলানা নূর উদ্দিন রাতেই প্রতিপক্ষের ৪ ব্যক্তির বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেছেন।

জানা গেছে, বড়লেখা সদর ইউনিয়নের আনজুমানে আল-ইসলাহ’র সভাপতি ও অজমীর মসজিদ কমিটির সেক্রেটারী মাওলানা নূর উদ্দিনের এক স্বজনের সাথে অজমীর গ্রামের কবির আহমদ, জাকির আহমদ, আকবর হোসেন, মখলিছুর রহমান গংদের বিরোধ চলছিল। সম্প্রতি তাদের মধ্যে ঝগড়া হলে তিনি নিষ্পত্তি করতে যান। কিন্তু এই দিন কবির গংরা নূর উদ্দিনকে লাঞ্ছিত ও দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়। বিষয়টি নিয়ে থানায় মামলা হয়। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা আপোষ নিষ্পত্তি করে দেওয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু কবির গং রা মানেনি।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ভাগ্না গৌছ উদ্দিনসহ মোটরসাইকেল যোগে ছোটলেখা দক্ষিণভাগ গ্রামে বাড়ি ফিরছিলেন। বিবাদীদের বাড়ির সামনে যাওয়া মাত্র মোটরসাইকেলের গতিরোধ করে হত্যার উদ্দেশ্যে তারা দেশিয় অস্ত্র-সস্ত্রে তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে মাওলানা নূর উদ্দিন ও গৌছ উদ্দিন মারাত্মক রক্তাক্ত জখম হন। গুরুতর আহত অবস্থায় তাদেরকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

বড়লেখা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. জাহাঙ্গীর হোসেন সরদার জানান, হামলার ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

তিলপাড়ায় ইসলামী যুব সংঘের উদ্যোগে অসহায়দের নগদ অর্থ সহায়তা প্রদান