বিয়ানীবাজার পৌরশহরসহ উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারে ৩০টিরও বেশি ব্যাংকের প্রায় অর্ধশতাধিক শাখা রয়েছে। এ কারণেই প্রবাসী অধ্যুষিত এই উপজেলাকে বলা হয় ব্যাংকের শহর।

সাপ্তাহিক ছুটি ও ব্যাংক হলিডে মিলিয়ে চলতি বছরের শেষ দিন এবং নতুন বছরের প্রথম দুই দিন দেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থায় লেনদেন বন্ধ থাকবে। এ তিনদিন আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোতেও লেনদেন হবে না। একইভাবে সারাদেশের মতো বিয়ানীবাজারে বিভিন্ন ব্যাংকে বন্ধ থাকবে আর্থিক লেনদেন।

এদিকে, ব্যাংকে এই তিন দিন লেনদেন বন্ধ থাকার বিষয়টি জানা নেই বেশিরভাগ গ্রাহকদের। এতে বৃহস্পতিবার ব্যাংকে এসে সেবা না পেয়ে অনেকে ফিরে গেছে। মাথিউরা এলাকার আকবর হোসেন নামের এক গ্রাহক জানান, সোনালী ব্যাংকে একটা ব্যাংক ড্রাফট করতে এসেছিলাম। অফিসাররা বলছেন বছরের শেষ এবং নতুন বছর শুরু হওয়ায় আমাদের হিসেব-নিকেশের কাজ চলছে। তাই দুই তিন দিন লেনদন বন্ধ থাকবে। তাই বাধ্য হয়ে ফিরে যাচ্ছি।

জানা গেছে, বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) ছিল চলতি বছরে দেশের ব্যাংকিং ব্যবস্থায় লেনদেনের শেষ কার্যদিবস। ২০২১ সালের ১ ও ২ জানুয়ারি সাপ্তাহিক ছুটির দিন শুক্র ও শনিবার। ছুটির কারণে এ দু’দিন ব্যাংক বন্ধ থাকবে। ৩১ ডিসেম্বর ব্যাংক হলিডে। এদিন চূড়ান্ত হিসাবের জন্য ব্যাংকগুলো খোলা থাকলেও কোনো ধরনের লেনদেন হবে না।

তবে এ সময় গ্রাহক অটোমেটেড টেলার মেশিন (এটিএম) থেকে কার্ড দিয়ে টাকা তুলতে পারবেন। অনলাইন ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে লেনদেন করতে পারবেন।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র সিরাজুল ইসলাম বলেন, প্রতি বছরের শেষদিন ব্যাংক হলিডে থাকে। ওইদিন ব্যাংকগুলোর বার্ষিক হিসাব সম্পাদনের জন্য খোলা রাখা হলেও লেনদেন বন্ধ থাকে। ব্যাংকে ছুটির তালিকায় ৩১ ডিসেম্বর ব্যাংক হলিডে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

নানা সমস্যায় জর্জরিত বিয়ানীবাজার ডাকঘর