বিয়ানীবাজার উপজেলার লাউতা ইউনিয়নের গজারাই দিঘীর পার এলাকার হাওরে পাওয়া লাশটি অজ্ঞাত কোন মহিলার। বুধবার দুপুরে গ্রামবাসী লাশটি দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেন। লাশের ঘটনা তদন্ত করতে আসবে পুলিশ ব্যুরোর তদন্ত (পিবিআই) দল।

ঘটনাস্থলে থাকা বিয়ানীবাজার থানার ওসি হিল্লোল রায় জানান, লাশটির পরিচয় শনাক্ত করতে ডিএনও টেস্ট করা হবে। তিনি জানান, মুখের সামনের অংশ ছাড়া পুরো শরীর পুড়ে গেছে। হাতের আঙ্গুল পুড়ে যাওয়ায় হাতের ছাপ নেয়া সম্ভব না। তিনি জড়িতদের বিরুদ্ধে তদন্ত মাধ্যমে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বিয়ানীবাজার সম্প্রতি সময়ে কোন মহিলা হারিয়ে যাওয়ার রেকর্ড নেই। সবদিক থেকে আমরা তদন্ত করে এ ঘটনার মোটিভ উদ্ধার করবো।

ঘটনাস্থলে থাকা বিয়ানীবাজার নিউজ২৪ এর বার্তা সম্পাদক শহিদুল ইসলাম সাজু বলেন, লাশটি দেখে সহজেই অনুমান করা যাচ্ছে এটি কোন মহিলার দগ্ধ মরদেহ। আংশিক দগ্ধ লাশের মাথায় লম্বা চুল রয়েছে। অর্ধে ক পুড়া পা আকারে ছোট। ধারণা করা যায় প্রাপ্ত বয়স্ক একজন মহিলাকে পুড়নো হয়েছে। তবে লাশের মুখের সামনে অংশ অক্ষত আছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিয়ানীবাজারে পুড়ে মহিলার লাশ উদ্ধার- মুখ অক্ষত