বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪। ০৬ এপ্রিল ২০১৭।

বিয়ানীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী নৌকার মাঝি আব্দুস শুকুর আজ বৃহস্পতিবার বিকালে বিয়ানীবাজারে কর্মরত সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। কলেজ রোডের রয়েল স্পাইস রেস্তুরায় তিনি এ মতবিনিময় সভা করেন।

মেয়র পদপ্রার্থী আব্দুস শুকুর বলেন, বিয়ানীবাজার পৌরসভা ২০০১ সালে গঠিত হয়েছে। পৌরশহরে বিয়ানীবাজার উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষের যোগাযোগ থাকায় পৌরশহর সব সময় কর্মব্যস্ত থাকে। অথচ এ পৌরসভার দীর্ঘ ১৬ বছরের মৌলিক কোন উন্নয়ন না হওয়ায় নাগরিক প্রতিনিয়ত বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন। তিনি বলেন, পৌরসভার জলাবদ্ধতা, অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা, অপরিচ্ছন্নতা, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশসহ মানুষের মৌলিক অধিকার বিপন্ন রয়েছে। আমি নির্বাচিত হলে প্রথমে পৌরসভার জলাবদ্ধতা নিরসনে কাজ করবো। ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করার পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকর পরিবেশকে পরিচ্ছন্ন করতে হবে। এক্ষেত্রে পৌরবাসীর আন্তরিক সহযোগিতার প্রয়োজন। সবার সহযোগিতায় একটি সুন্দর ও আধুনিক পৌরসভা গঠন করাই হবে আমার ও আমার দল আওয়ামী লীগের মূল লক্ষ্য।

মেয়র প্রার্থী শুকুর শুরুতেই বলেন, বিয়ানীবাজার মানুষ, যথেষ্ট সংযমী, ভদ্র এবং সর্বোপরি ভাল মানুষ। বিশ্বের যেকোন শহরের তুলনায় এখানকার অধিবাসীরা এগিয়ে রয়েছেন। শুধু অনুন্নত ও অপরিচ্ছন্ন পৌরসভার কারণে আমাদের সকল উন্নয়ন ও অগ্রযাত্রা প্রকাশ পাচ্ছে না। তিনি বলেন, দীর্ঘ ১৬ বছর পর বিয়ানীবাজার পৌরসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। এ নির্বাচন অনুষ্ঠান করতে সাংবাদিকদের ভূমিকা ছিল অগ্রগণ্য। এছাড়া পৌরসভার সচেতন মানুষজন এখানে নির্বাচন অনুষ্ঠানের প্রতিবন্ধকতা দূর করতে নিরলসভাবে কাজ করেছেন। আমি একজন রাজনৈতিক কর্মী হিসাবে সেসব মানুষের সহযোগিতা করেছি। দীর্ঘ আন্দোলন ও আইনী প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর এখানে নির্বাচনের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে এবং আজ পৌরসভায় নির্বাচন উৎসব বিরাজ করছে।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, নির্বাচিত হলে প্রথম পর্যায়ে জলাবদ্ধতা নিরসন করার লক্ষ্যে কাজ করবো। বিয়ানীবাজার পৌরসভার প্রশাসনিক কোন কাঠামো নেই। আমার লক্ষ্য থাকবে পৌরসভার প্রশাসনিক কাঠামো পুর্নগঠন করা। তিনি বলেন, সকল মেয়র প্রার্থীদের সাথে আমার খুব ভাল ও আন্তরিক সম্পর্ক রয়েছে। আমি আগেই বলেছি- বিয়ানীবাজারের সব মানুষ ভাল বিধায় কারো সাথে কারো খারাপ সম্পর্ক থাকার কথা না।

মেয়র প্রার্থী আব্দুস শুকুর সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন, বিনোদনকেন্দ্র স্থাপন করার পৌরসভার সুযোগ রয়েছে। এছাড়া পৌরসভার রাজস্ব আয় থেকে শুরু করে সকল উন্নয়ন কর্মকান্ড সঠিক ও সুন্দরভাবে পরিচালনা করাই হচ্ছে আমার এবং আমার দল আওয়ামী লীগের মূল লক্ষ্য।

মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিয়ানীবাজার প্রেসক্লাব সভাপতি আতাউর রহমান, জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন সভাপতি আহমেদ ফয়সাল, প্রেস ক্লাব সাধারণ সম্পাদক মিলাদ জয়নুল, জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শাবুল আহমেদ, সিনিয়র সাংবাদিক হাসানুল হক উজ্জল, ছাদেক আহমদ আজাদ, শাহীদ আলম হৃদয়, জহির উদ্দিন, মুকিত মোহাম্মদ, সাংবাদিক জুনেদ ইকবাল লাজুক, সুয়াইবুর রহমান স্বপন, সুফিয়ান আহমদ, সিপার আহমদ পলাশ, মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, তোফায়েল আহমদ, রুয়েল আহমদ, আবু তাহের রাজু, মিছবা উদ্দিন, তাজবীর আহমদ ছাইম প্রমুখ।

মতনিবিময় সভায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহসভাপতি ময়নুল ইসলাম সভাপতিত্ব করেন। এসময় উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান খান, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আব্দুল আহাদ কলা ও শামসুদ্দীন খান, যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেন বাবুল, দপ্তর সম্পাদক মোসলেহ উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক হারুনুর রশিদ দিপু, গবেষণা সম্পাদক ছালেহ আহমদ বাবুল, আওয়ামী লীগ নেতা শামীম আহমদ, পৌরসভা আওয়ামী লীগের সভাপতি সামসুল হক, সাধারণ সম্পাদক এবাদ আহমদ, শামীম সামাদ প্রমুখ।