প্রশাসনের চোখের সামনে ঘটছে চাঁদাবাজির ঘটনা। পথচারি থেকে ব্যবসায়ী- সকল মানুষের মধ্যে আতংক তৈরী করে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজির ঘটনাটি আজ রবিবার বিকালে বিয়ানীবাজার পৌরশহরে ঘটে।

এর আগে বিয়ানীবাজার-বারইগ্রাম সড়কের মহিলা কলেজ ও মোল্লাপুর এলাকায় হাতি দিয়ে বিভিন্ন ধরনের যানবাহন আটকিয়ে চাঁদাবাজি করছে হাতির মাহুত। তার ইঙ্গিতে গাড়ির কাঁচের ফাঁক দিকে শুড় ঢুকিয়ে যাত্রি ও চালকের কাছ থেকে টাকা আনা হচ্ছে। কোন যানবাহন পাশ কাটিয়ে যেতে চাইলে মাহুতের ইশারায় বাদা হয়ে দাড়িয়ে যাচ্ছে হাতিটি।

এনিয়ে বিয়ানীবাজার আদর্শ মহিলা কলেজের এক শিক্ষক তার ফেসবুক ওয়ালে স্ট্যাটাস দিয়ে পুলিশ প্রশাসন ও সাংবাদিকদের সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি নিজেও এর শিকার হয়েছে জানিয়ে মোবাইল ফোনে বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪কে বলেন, হাতি দেখলেই ভয়ে গা শিউরে উঠে। তার উপর মাহুতের ইঙ্গিতে হাতির শুড় নাকের ডগায় চলে আসে। গাড়িতে বসা অবস্থায় যাত্রিরা টাকা দিয়ে নিস্তার পান। তিনি বলেন, মাহুত এ অপরাদমুলক কাজটি করছে হয়তো হাতির মূল মালিক এ বিষয়টি নাও জানতে পারেন। তিনি সকলের সহযোগিতায় এরকম চাঁদাবাজি বন্ধের আহবান জানান।

হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি বিয়ানীবাজার-বারইগ্রাম সড়ক পেরিয়ে বিকালে পৌরশহরে শুরু। দক্ষিণ বাজার থেকে শুরু করে কলেজ রোড হয়ে  বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের সামন পর্যন্ত হাতিটি একই কর্ম সাধন করে চলে যেতে দেখা যায়। এসময় ব্যবসায়ী, পথচারী ও যানবাহনের চালকদের কাছ থেকে হাতির মাহুত হাতির দিয়ে চাঁদা সংগ্রহ করছে। সকলে হাতির শুড় এগিয়ে দিতে টাকা দিচ্ছেন।

এ নিয়ে বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চন্দন কুমার চক্রবর্তীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি দ্রুত সময়ের ব্যবস্থা নিচ্ছেন বলে জানান।