পরিবার ও মাদ্রাসায় লেখা পড়ার চাপ ও শাসন থেকে নিজেকে দূরে রাখতে রাসেল সিলেটের এক বন্ধুর বাসায় চলে যায়। কাউকে না বলে সে অনেকটা আত্মগোপন করে। আজ বৃহস্পতিবার তার বন্ধুর অভিভাবকরা বিষয়টি জানতে পেরে তাকে বিয়ানীবাজারের নিজ বাসায় পৌঁছে দেন।

রাসেল সুস্থভাবে বাসায় ফিরেছে জানিয়ে তার ভাই সিদ্দিক বলেন, লেখাপড়ার চাপ ছিল রাসেলের উপর। পরিবারের বড় ভাই ও মাদ্রাসা থেকে লেখা পড়ার প্রতি আরও মনোযোগী হতে শাসন করেন। যার কারণে কাউকে না জানিয়ে সে সিলেটের এক বন্ধুর বাসায় চলে যায়। সিদ্দিক বলেন, তার পুরাতন একটি মোবাইল নম্বর স্বচল দেখে সেটায় কল দেয়া হয়। অনেকবার কল দেয়ার পর সে রিসিভ না করায় ম্যাসেজ দেয়ার পর যোগাযোগ হয়। এর মধ্যে অন লাইন সংবাদে রাসেলের বিষয়টি অবহিত হন তার বন্ধুর পরিবার। আজ বৃহস্পতিবার সকালে তার বন্ধুর অভিভাবকরা তাকে বাসায় পৌঁছে দেন।

সিদ্দিক বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪কে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, আপনাদের সহযোগিতায় রাসেল বাসায় ফিরছে। আপনাদের কাছে আমরা কৃতজ্ঞ- সত্যি রাসেলেকে না পেয়ে পরিবারের সকল সদস্য ভেঙ্গে পড়েছিলেন। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক, সবাই আনন্দন করছেন।