বিয়ানীবাজার থেকে আরও ৯জনের নমুনা সংগ্রহ করে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিশেষায়িত ল্যাবে প্রেরণ করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বশীলরা। এ প্রতিবেদন লিখা পর্যন্ত বিয়ানীবাজার উপজেলায় আপাতত কোন করোনা পজেটিভ রোগী না থাকলে অপেক্ষমাণ রিপোর্টের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৮টিতে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও ডা. আবু ইসহাক আজাদ জানান, রোববার নতুন আরও ৯জনের নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে প্রেরণ করা হয়। এর মধ্যে ঢাকা ফেরত দুজন, নাটোর ফেরত দুজন, ভারত ফেরত একজন, নেত্রকোনা ফেরত একজন এবং মৃদু উপসর্গযুক্ত তিনজন রয়েছেন। সন্দেহভাজনদের মধ্যে মহিলা দুজন মহিলা ও অন্য ৭জনের সকলেই পুরুষ।

তিনি আরও জানান, এ পর্যন্ত বিয়ানীবাজার থেকে মোট ১২৮ জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য ল্যাবে প্রেরণ করা হয়। এর মধ্যে মাত্র ২৮টি নমুনার ফলাফলের এখনো অপেক্ষমাণ রয়েছে। এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ৬০ সন্দেহভাজন এখনো হোম কোয়ারেন্টাইনে রয়তেছেন। এদের অধিকাংশই বাইরের জেলা থেকে আগত নারী-পুরুষ রয়েছেন। তবে ইতোমধ্যে উপজেলার করোনা পজেটিভ শনাক্ত হওয়া ৫জনই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন।

রোববার (১৭ মে) দিনভর পৌরসভা ও উপজেলার বিভিন্ন এলাকা থেকে এসব সংগ্রহ করেছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ আবু ইসহাক আজাদের নেতৃত্বাধীন একটি বিশেষ টিম। এ টিমে রয়েছেন হাসপাতালের এমওডিসি  ডাঃ জীবনানন্দ দেব রায়, এমটিইপিআই তপনজ্যোতি ভট্টাচার্য, ল্যাব টেকনিশিয়ান সুজন অহির, ওয়ার্ড বয় আকিভ আলী, এম্বুলেন্স চালক আনোয়ার হোসেন। এ টিমকে সার্বিকভাবে সহযোগিতা করেছেন সিএইচসিপি সাইফুল ইসলাম।

‘এবি টিভি’র সর্বশেষ প্রতিবেদন-