অনেক জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে দুই যুগের পর বিয়ানীবাজার ছাত্রলীগের ৩ ইউনিটের কমিটি যে কোন ঘোষণা দিতে পারে সিলেট জেলা ছাত্রলীগ। কমিটি ঘোষণার সম্ভাব্যতা শুরু হওয়ায় বিয়ানীবাজারে উচ্ছ্বাস ও হতাশা-দুই দৃশ্যই চোখে পড়ছে। বিশেষ করে কমিটিতে মূল পদে আসতে না পারায় পরিক্ষিত নেতাকর্মীদের মধ্যে বিষাদ নেমে এসেছে। তারপরও ছাত্রলীগের কমিটি হচ্ছে- এতে খুশি নেতাকর্মীরা।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, প্রথমবারের মতো উপজেলা ছাত্রলীগের মূল পদে স্থান পাচ্ছে ছাত্রলীগ পাবেল গ্রুপ। একই ইউনিটে ছাত্রলীগ পল্লবগ্রুপ মূল পদ পাওয়া প্রায় নিশ্চিত। তবে প্রথম বারের মতো উপজেলা ছাত্রলীগের মূল পদ পাচ্ছে না ছাত্রলীগ রিভারবেল্ট, মূলধারা গ্রুপ ও জামালগ্রুপ । এ দুই গ্রুপের ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হতাশা প্রকাশ করলেও প্রকাশ্যে কোন ধরনের কার্যক্রম দেখা যায়নি। বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ইউনিটে ছাত্রলীগ রিভারবেল্ট গ্রুপের সাথে মূল পদে থাকতে পারে ছাত্রলীগ পাবেল ও জয়বাংলা গ্রুপ এবং পৌরসভা ছাত্রলীগের ইউনিটে পল্লবগ্রুপ ও স্বাধীন গ্রুপের হাতে উঠতে পারে মূল পদ।

জেলা ছাত্রলীগের একাধিক দায়িত্বশীল জানান, মূল পদ পদবীর সাথে পুর্ণাঙ্গ কমিটি দেয়া হবে। এতে মূল পদে বাদপড়া ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের (বিবদমান গ্রুপ) সহসভাপতি, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদক পদসহ অন্যান্য পদে আসীন করা হবে। একই ধারাবাহিকতা থাকবে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ও বিয়ানীবাজার পৌরসভা ছাত্রলীগের কমিটিতে।

জানা যায়,উপজেলা ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ৭১ থেকে ৯১ সদস্য বিশিষ্ট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। একই সাথে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ও পৌরসভা ছাত্রলীগের কমিটি পূর্ণাঙ্গ করার বিষয়ে দায়িত্বশীলরা একমত। তবে পৌরসভায় আহবায়ক কমিটি দেয়া হলে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি ৭১ থেকে ৯১ সদস্য বিশিষ্ট হতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাজমুল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে মুঠোফোন বন্ধ পাওয়া যায়।