প্রসুতি মা কে নিয়ে নিরাপদে পৌঁছানোর আগেই হাসপাতালের সিঁড়িতেই জন্ম হয়েছে এক নবজাতকের। মঙ্গলবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ঘটে যাওয়া এমন একটি ঘটনার প্রতক্ষদর্শী হয়েছেন উপস্থিত লোকজন। অবশ্য হাসপাতালের দায়িত্বশীলদের তৎপরতায় এখন মা ও নবজাতক দুইজনই নিরাপদ ও সুস্থ আছেন।

প্রসুতি জেসমিন আক্তারের এটি তৃতীয় সন্তান। তিনি পরিবারের সাথে পৌরসভার খাসাড়িপাড়া গ্রামে ভাড়া বাড়িতে বসবাস করেন। তিনি গৃহকর্মীর কাজ করেন। দিনমজুর স্বামী ছাব্বির হোসেন।

জেসমিন আক্তারের শ্বাশুড়ি জানান, শুরুতে বাড়িতে রেখে স্বাভাবিক প্রসবের চেস্টা করেছেন তারা। পরে অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে নিয়ে হাসপাতালে এসেছেন। প্রসুতিকে নিয়ে হাসপাতালের গাইনি বিভাগে
নিয়ে যাওয়ার পথে সিঁড়ির মূখে বাচ্চার জন্ম হয়। তখন দ্রুত সময়ের মধ্যে নার্স ও আয়া ছুটে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেন।

হাসপাতালের মিডওয়াইফ কতিবা বিশ্বাস বলেন, এ রকম পরিস্থিতি সাধারণত ঘটে না। তারপরও আমরা দ্রুত সময়ের মধ্যে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করেছি। মা ও শিশু সুস্থ রয়েছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের গাইনি বিভাগের কনসালটেন্ট নাসিমুজ্জামান বলেন, হাসপাতালে আসার পথে এ্যাম্বুল্যান্সে কিংবা গাড়িতে প্রায়ই নবজাতকের জন্ম হয়। এতে ওই পরিবারের অসচেতনা ও অসতর্কতার কারণে এমনটি ঘটে। তিনি বলেন, হাসপাতালের সিঁড়িতে প্রসুতি মা সন্তান জন্ম দিলেও আমাদের মিডওয়াইফ ও আয়াদের তৎপরতায় মা ও নবজাতক উভয় সুস্থ ও আশংকামুক্ত। তবে এরকম ঘটনায় মা ও সন্তানের মারাত্মক ক্ষতি হতে পারতো।

এবিটিভির বিশেষ প্রতিবেদন

বিয়ানীবাজার হাসপাতালের সিঁড়িতে সন্তান প্রসব ডাক্তারের পর্যবেক্ষণে মা-সন্তান