সাবেক শিক্ষামন্ত্রী ও সিলেট-৬ (গোলাপগঞ্জ-বিয়ানীবাজার) আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকার কৃষি ও কৃষকদের সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে নানাবিদ উন্নয়ন কর্মসূচি গ্রহণ ও বাস্তবায়ন করছে। কেননা কৃষক ও কৃষিকে অবহেলা করে উন্নয়ন সম্ভব নয়। এ কারণে সরকার এইখাতে গুরুত্ব দিয়ে ভর্তুকি দিচ্ছে। কৃষকদের বিনামূল্যে বীজ ও সার দেওয়ার পাশাপাশি মাঠ পর্যায়ে তাদের প্রশিক্ষণ ও কৃষি উপকরণ দেওয়া হচ্ছে। এতে কৃষিতে আগ্রহী হচ্ছেন তৃণমূলের মানুষ।

বুধবার সকাল ১১টায় বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে ২০২০-২১ অর্থবছরে কৃষি সহায়তা বিতরণ অনুষ্ঠানে টেলি কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। এসময় তিনি উপজেলার সাড়ে ৪ হাজার কৃষকের মধ্যে বোরো ধান, রবি ফসল আবাদে প্রনোদনা ও রবি ফসল আবাদে প্রনোদনা কর্মসূচির আওতায় কৃষি সহায়তা বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত কৃষকদের উদ্দেশ্যে নুরুল ইসলাম নাহিদ এমপি বলেন, সরকার কৃষির উন্নয়নে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। আপনাদের সব ধরণের সহায়তা দিচ্ছে। ফসল, সবজি, খাদ্য ইত্যাদি উৎপাদনে গুরুত্ব দিতে হবে। বাড়ির আঙিনাসহ সব পতিত জমিতে ফসল ফলান। এক ইঞ্চি জমি পতিত রাখবেন না।

বিয়ানীবাজার উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনিছুজ্জামানের সঞ্চালনায় এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মৌসুমী মাহবুবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাকসুদুল ইসলাম আউয়াল, সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হীরালাল বিশ্বাস, উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা হিতাংশু শেখর দাস ও পূলক পুরকায়স্থ।

উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিস সূত্রে জানা গেছে, বোরো ধানের আবাদ ও উৎপাদন বৃদ্ধি এবং বোরো হাইব্রিড জাতের ধান চাষের আধুনিক প্রযুক্তি সম্প্রসারণের লক্ষ্যে ২ হাজার ১ শত ৪০ জন কৃষককে বীজ সহায়তা প্রণোদনা দেওয়া হয়। এছাড়া রবি ফসল আবাদে পুনর্বাসনের আওতায় ১ হাজার ৬৫জন ও প্রনোদনা কর্মসূচির আওতায় ৫ শত ১৫ জন কৃষকের মধ্যে বিভিন্ন পরিমাণের বীজ সহায়তা বিতরণ করা হয়।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিয়ানীবাজারে গ্রামীণ সড়ক খাতে নজরকাড়া উন্নয়ন, পাল্টে যাচ্ছে জীবনযাত্রা