বিয়ানীবাজারে পরিচিত বেশ কয়েকজনের ফেসবুক ফেইক আইডি থেকে পরিচতি স্বজন ও প্রিয়জনের কাছে সাহায্য চেয়ে টাকা পাঠানোর অনুরোধ করা হচ্ছে। বিষয়টি অনেক স্বজনের কাছে ধরা পড়ায় তারা বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪কে এ বিষয়ে প্রতিবেদন করার অনুরোধ করেন। বিশেষ করে অসচেতন অবস্থায় এসব ফেইক আইডির হ্যাকারদের পাতা ফাঁদে যাতে কেউ পা না দেন।

কয়েকদিন আগে মাস্টার পিস বাংলাদেশের প্রেসিডেন্ট ও শিক্ষক ফয়জুল সিমালের ফেইক আইডি তৈরী করে তার পরিচিতদের কাছে সাহায্য চেয়ে টাকা পাঠানোর অনুরোধ করে হ্যাকাররা। তাদের অনুরোধের অনেকেই টাকা পাঠাবেন কিভাবে জানতে চাইলে ব্যক্তিগত বিকাশ নম্বর দেয়া হয়। এ নম্বর একেক জনের কাছে একেকটি দেয়া হচ্ছে বলে জানান ভুক্তভোগীরা।

ফারহান রহমান নামের যুক্তরাজ্য প্রবাসীর ফেসবুক ফেইক আইডি খুলে টাকা পাঠানোর অনুরোধ করা হয়। ফারহানের বাড়ি পৌরসভার দাসগ্রামে। তার ফেইক আইডি থেকে ঢাকার হাবিব এন্টারপ্রাইজের জাবিলের কাছে বার্তা পাঠিয়ে কোশলাধি জিজ্ঞেস শেষে সমস্যার কথা জানিয়ে টাকা সাহায্য চাওয়া হয়। বিষয়টি জাবিল বুঝতে পেরে হ্যাকারকে বলেন, কবে ফেইক আইডি খোলা হয়েছে। একথা বলার পর হ্যাকার সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে।

ফারহার রহমানের ছোট ভাই সাইদুল ইসলাম (চারুলেখার প্রতিষ্ঠাতা) তার ফেসবুক টাইম লাইনের ফারহানের ফেইক আইডি থেকে টাকা চাওয়া হচ্ছে। এ ফাঁদে যেন কেউ না জড়ান তার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন।

বিয়ানীবাজার জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক শাবুল আহমেদ বলেন, এসব বিষয়গুলো বিয়ানীবাজারে কখনো ছিল না। আইটি এক্সাপাঠ না হলে এরকম ফেইক আইডি খোলাও সম্ভব না। এটি একটি চক্র যারা ফেইক আইডির মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছে। মূল মানুষ এ বিষয়ে অনেক পরে জানছেন যে তার নাম ও ব্যক্তিত্ব ব্যবহার কতরে অসাধু আইটি এক্সপাঠরা এসব করছেন। তিনি সবাইকে এভাবে লেনদেন করতে সতর্কতা অবলম্বনের আহবান জানান।