শৌখিন ও পরিশ্রমী কৃষি দম্পতি বিয়ানীবাজারের জমির হোসেন ও নাজু বেগম। নিজেদের বাড়িতেই গড়ে তুলেছেন দৃষ্টিনন্দন ফল, শাক-সবজি ও মসলার বাগান। এতে করে পরিবারের খাদ্য ও পুষ্টির চাহিদা পূরণের পাশাপাশি বাড়ির পরিবেশও শীতল থাকছে। অবসর সময় কাটছে গাছগাছালি আর সুন্দর পরিবেশের সান্নিধ্যে ।

এই দম্পতির বাড়ি উপজেলার কুড়ারবাজার ইউনিয়নের লাউজারী গ্রামে। বাড়ির সীমানার ভেতরে প্রায় সাড়ে ৩ একর জায়গাজুড়ে গড়ে উঠা তাদের বাগানে ২০-২৫ ধরনের ফল, শাকসবজি রয়েছে। এর মধ্যে চিনিঙ্গা, বাধাকপি, লাউ, মুলা, শিম, শসা, কেরেলা, টমেটো, পেঁপে, মিষ্টি কুমড়া, লালশাক, ঝালি কুমড়া, আপেল কূল, বিভিন্ন জাতের আম, লিচু, আতাফল, লেবু, নাশপাতি, পেয়ারা, কলা, কাচামরিচ, ধনেপাতা, সরিষা উল্লেখযোগ্য।

দশ বছর আগে বাড়ির আঙ্গিনায় ১০০টি আপেল কুল চারা রোপন করেন। প্রথম থেকে ফলন ভালো আসলেও বর্তমানে তাদের বাগানে চারার পাশাপাশি ফলনের সংখ্যাও কমেছে। সম্প্রতি নতুন করে চারা রোপনের জ্ন্য জমি প্রস্তুতের কথাও জানান এই দম্পতি।

তারা জানান, ছেলেমেয়েসহ পরিবারের সদস্যরা ভেজালমুক্ত পেয়ারা, আম, পেঁপে, নাশপাতি, লিচু, জালিম আতাফলসহ নানান রকমের মৌসুমী ফল খেতে পারেন।

বাড়ির পুকুরে নানা জাতের মাছ চাষের পাশাপাশি মাংস উৎপাদনশীল উন্নতজাতের গরু লালন-পালন করেন তারা। সর্বোপরি বিয়ানীবাজার উপজেলার কৃষক-কৃষাণীদের জন্য বিষমুক্ত ফল ও নিরাপদ শাকসবজি উৎপাদনের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত এই দম্পতি।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

বিয়ানীবাজারে জমির হোসেন ও নাজু বেগম দম্পতির কৃষি আঙিনা