বিশ্বমানের পূর্ণাঙ্গ সুযোগ সুবিধা নিয়ে খুব শিগগিরই চালু হচ্ছে পূর্ব সিলেটের প্রথম ইনডোর ব্যাডমিন্টন স্টেডিয়াম। প্রায় ৩৫ লাখ টাকা ব্যয়ে বিয়ানীবাজার পৌরশহরের অদূরে লাসাইতলা গ্রামে ৪ হাজার ২’শ ৫০ বর্গফুট এলাকাজুড়ে নির্মাণ করা হচ্ছে এই আধুনিক স্টেডিয়ামটি। নাম দেয়া হয়েছে বিয়ানীবাজার ইনডোর ব্যাডমিন্টন একাডেমি।

একাডেমি সংশ্লিষ্টরা জানান, এই ব্যাডমিন্টন একাডেমিকে ঘিরে বিয়ানীবাজারের ক্রীড়াঙ্গনে উন্মোচিত হচ্ছে এক নতুন দিগন্ত। আগামীতে এখান থেকেই উঠে আসবে বিশ্বমানের শাটলার। যাদের হাত ধরে এগিয়ে যাবে পঞ্চখণ্ড তথা সমগ্র বাংলাদেশের ব্যাডমিন্টন এমন আশাবাদ ব্যক্ত করেছেন একাডেমি সংশ্লিষ্টরা।

আধুনিক স্থাপনা শৈলীতে নির্মিতব্য এই একাডেমি স্থাপনে পৃষ্ঠপোষক হচ্ছে মোট ৭জন যুবক। তারা হচ্ছেন- যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী মো. হাসান আহমদ ও লায়েক হোসেন, ব্যবসায়ী মো. রায়হান খান, তারেক আহমদ, কাওছার হোসেন, পলাশ সেন ও সাব্বির আহমদ। তারা সকলেই সাবেক ব্যাডমিন্টন খেলোয়াড়। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, প্রাক্তন ৭ শাটলারের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন-সাধনা বাস্তবে রূপ দিতে ইনডোর ব্যাডমিন্টন স্টেডিয়ামটির নির্মাণ কাজ চলছে দিবারাত্রি। উদ্যোক্তা কিংবা শ্রমিকদের যেন দম ফেলবার ফুরসত নেই। ইতোমধ্যে স্টেডিয়ামের ৭৫ শতাংশ নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।

প্রতিবেদকের সাথে কথা হয় একাডেমির অন্যতম উদ্যোক্তা রায়হান খানের সাথে। তিনি জানান, এই একাডেমির ইনডোর স্টেডিয়ামে থাকবে মিনি গ্যালারিসহ উন্নতমানের দুটি ব্যাডমিন্টন কোর্ট। সংযুক্ত থাকবে ইনডোরে রেস্টরুম ও ট্রায়াল রুম। এছাড়াও একাডেমির সামনে গড়ে তোলা হবে ক্যাফেটেরিয়া, ইকুয়েপমেন্ট শপ, মিনি পার্ক ও গাড়ি পার্কিংয়ের সুবিধা। এছারা অদূর ভবিষ্যতে স্টেডিয়ামের পাশে একটি সুইমিং করার পরকল্পনাও আমাদের রয়েছে।

রায়হান খান আরও জানান, একাডেমির জন্য প্রশিক্ষক হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের নিবন্ধিত কোচ প্রদীপ সিংহকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। এখানে ব্যাচ করে প্রশিক্ষণার্থীদেরকে কোচিং করানো হবে। চলতি মাসের শেষদিকে পুরোদমে একাডেমিক কার্যক্রম শুরু হবে বলে জানিয়েছেন তারা। তিনি জানান, মূলত আমরা তৃণমূল পর্যায়ের ব্যাডমিন্টন অঙ্গন থেকে প্রতিভা অন্বেষণের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাডমিন্টন ফেডারেশনের সঙ্গে একই মোহনায় মিলিত হতে চাই।

একাডেমির অন্য দুই উদ্যোক্তা কাওছার হোসেন ও পলাশ সেন জানান, শুধুমাত্র শীত মৌসুমেই নয়, পুরো বছরজুড়েই যাতে এই অঞ্চলের খেলোয়াড়রা আধুনিক সুযোগ সুবিধার মধ্যে স্বাচ্ছন্দে ব্যাডমিন্টন খেলে একদিন জাতীয় পর্যায়ে বিয়ানীবাজারকে রিপ্রেজেন্ট করতে পারে- সেই দৃষ্টিকোণ থেকে এই ইনডোর একাডেমি নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

প্রথমবারের মতো বিয়ানীবাজারে নির্মিত হচ্ছে আধুনিক 'ইনডোর ব্যাডমিন্টন স্টেডিয়াম'