বিয়ানীবাজার উপজেলার দুবাগ ইউনিয়নের মইয়াখালি এলাকা থেকে গতকাল শনিবার পুলিশ সাবু আহমদ (২৫) নামের এক যুবককে আটক করে। তার বিরুদ্ধে থানায় একই গ্রামের সমছু মিয়া শিশুকন্যাকে ধর্ষণ করার অভিযোগ করেন।

আটক সাবু এলাকার মেদাই মিয়ার পুত্র। গত ১৫ সেপ্টেম্বর ঘরে প্রবেশ করে সমছু মিয়ার সাত বছরের শিশু কন্যাকে ধর্ষণের কথা উল্লেখ করে সমছু মিয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। পুলিশ অভিযোগ পেয়ে সাবুকে আটক। বিয়ানীবাজার থানার এস আই জিতেন্দ্র ও সাইফুল সাদা পোশাকে গতকাল সন্ধ্যায় সাবুকে আটক করেন।

আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে অভিযোগের বিষয়ে পুলিশের খটকা লাগে। তারা ভিকটিম শিশুকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে ধর্ষণের বিষয়টি অস্বীকার করে। অভিযোগটি সঠিক প্রমাণিত না হওয়ায় পুলিশ নিরিহ দিনমজুর সাবুকে ছেড়ে দেয়।
এ দিকে ধর্ষণের অভিযোগের বিষয়টি মইয়াখালি এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে নানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। এ অভিযোগের নেপথ্যে স্থানীয় কোন প্রভাবশালী ইন্ধন রয়েছে বলে স্থানীয় মানুষের ধারণা। তবে কি কারণে সমছু মিয়া এরকম একটি অভিযোগ দিলেন- এ ব্যাপারে পুলিশ কর্মকর্তার কাছেও সঠিক কোন ব্যাখ্যা নেই।

বিয়ানীবাজার থানার ওসি চন্দন কুমার চক্রবর্তী বলেন, আটক যুবকের বিরুদ্ধে প্রাথমিক তদন্তে অভিযোগ প্রমানিত হয়নি। ভিকটিম শিশুটিও ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তিনি বলেন, তদন্তে সঠিক প্রমাণিত হয়নি এরকম একটি অভিযোগ কেন দায়ের করা হয়েছে সেটি এই মুহূর্তে বলতে পারছি না।