বিয়ানীবাজারে গ্রামীণ রাস্তায় কেটে ফেলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে বৃদ্ধসহ দুই গ্রামের ৭জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। শুক্রবার রাত ১০টায় উপজেলার মাথিউরা ইউনিয়নের পূর্বপার ও মোল্লাপুর ইউনিয়নের লাসাইতলা গ্রামের মধ্যে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা যায়, উপজেলার মাথিউরা ও মোল্লাপুর ইউনিয়নের সংযোগ রাস্তার পানি প্রবাহের জন্য লাসাইতলা এলাকায় একটি ছোট কালভার্ট রয়েছে। সম্প্রতি এ রাস্তায় পাকাকরণ কাজ চলমান ত্থাকায় কালভার্টটি মাটি দিয়ে ভরাট করা হয়। গত দুই দিনের টানা বৃষ্টিতে লাসাইতলার জমির ফসলাদি বিনষ্ট হওয়ার উপক্রম হয়। একপর্যায়ে শুক্রবার রাতে লাসাইতলা গ্রামের কয়েকজন লোক পানি নিষ্কাশনের জন্য বদ্ধ কালভার্ট খুলতে মাটি সরাতে গেলে দুই গ্রামবাসী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে।

সংঘর্ষের ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে লাটিচার্জ ও ফাকাগুলি ছোঁড়া শুরু করলে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আসে। পরে উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিবদমান দুই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের সহায়তায় পুলিশ পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনে।

দুই গ্রামবাসীর ইটপাটকেল ও দেশীয় অস্ত্রের আঘাতে মাথিউরা ইউনিয়নের পূর্বপার এলাকার নাজিম উদ্দিন (৬০) ও হাসান আহমদ (১৮) গুরুতর আহত হয়েছেন। তাদের চোখে ও মুখের আঘাত গুরুতর হওয়ায় সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। অপরদিকে সংঘর্ষে লাসাইতলা গ্রামের আজিজ, তাজ উদ্দিন, কয়সর, জলিল, রাজু, সুহেল আহত হয়েছেন। তাদেরকে বিয়ানীবাজার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

সংঘর্ষের ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন বিয়ানীবাজার থানার ওসি অবনী শংকর কর। তিনি জানান, বৃষ্টির পানি যাবার জন্য গ্রামীণ রাস্তা কেটে ফেলাকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে পৌছালে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাটিচার্জ ও ৭ রাউন্ড ফাকা বুলেট নিক্ষেপ করেছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

তিনি আরোও জানান, উপজেলা চেয়ারম্যান ও বিবদমান দুই ইউনিয়নের চেয়ারম্যানবৃন্দ বিষয়টি সমাধানের দায়িত্ব নিয়েছেন। সমাধান না হলে আইনী ব্যবস্থা নেয়া হবে।