উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল এবং টানা বর্ষণে কুশিয়ারা নদীর বাঁধ ভেঙ্গে পানি প্রবেশ করছে বিয়ানীবাজার উপজেলার শেওলা ইউনিয়নে। পানি প্রবেশে শেওলা ইউনিয়নের দীগলবাক, কোনা শালেশ্বর ও বালিঙ্গা এলাকাসহ আশপাশের বেশ কয়েকটি এলাকার চলাচলের রাস্তা ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। যেকোন সময় তলিয়ে যেতে পারে এসব রাস্তা। এছাড়া নদীর বালিঙ্গা ও কোনা শালেশ্বর অংশের বাঁধ যে কোন সময় ভেঙ্গে যেতে পারে।

আজ শুক্রবার (১২ জুলাই) সকালে উপজেলার শেওলা ইউনিয়নের দীগলবাক এলাকার কুশিয়ারা নদীর ডাইক ভেঙ্গে যাওয়ার খবর জানিয়েছেন স্থানীয়রা। ইউপি চেয়ারম্যান নদীর ডাইক ভেঙ্গে যাওয়ার বিষয়টি জানিয়েছেন উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তাকে। সকাল থেকে ভাঙ্গা ডাইক দিয়ে লোকালয়ে পানি প্রবেশ করায় এরই মধ্যে এলাকার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে।

উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তা মোহাম্মদ হিরণ জানান, শুত্রবার সকালে কুশিয়ারা নদীর শেওলা পয়েন্টে বিপথ সীমার ১২ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে পানি প্রবাহিত হচ্ছে। পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। তিনি জানান, পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে উপজেলা প্রশাসন।

শেওলা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আখতার হোসেন খান জাহেদ বলেন, নদীর ঝুঁকিপূর্ণ ডাইকের কারণে দিঘলবাঁক এলাকায় ভাঙ্গন দেখা দেয়। এছাড়া কোনা শালেশ্বর ও কালিঙ্গা এলাকার নদী তীরবর্তী বাসিন্দারা রয়েছে ঝুঁকির মধ্যে।

শেওলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জহুর উদ্দিন বলেন, আজ সকালে ডাইক ভেঙ্গে যাওয়ার খবর পেয়ে পরিদর্শন করেছি এবং উপজেলা প্রকল্প কর্মকর্তাকে অবহিত করেছি। তিনি জানান, ডাইকটি দুর্বল থাকায় পানির তোড়ে ভেঙ্গে গেছে।