বিয়ানীবাজারে হেফাজতের ডাকা হরতাল চলাকালে হেফাজত ও ছাত্রলীগের দুই কর্মীর বাকবিতণ্ডতায় হাতাহাতির ঘটনা ঘটেছে। এতে বিয়ানীবাজার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমান খান আহত হয়েছেন। তিনি হাতাহাতির সময় তার ডান হাতে আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন এবং স্থানীয় একটি চিকিৎসালয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন।

রোববার দুপুর ২টার দিকে পৌরশহরের উত্তরবাজার কেন্দ্রীয় মসজিদের সামনে এ ঘটনা ঘটেছে। পরে থানা পুলিশ ও আওয়ামী লীগের সিনিয়র নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপে উভয়পক্ষ শান্ত হয়। কিন্তু এই ঘটনায় পৌরশহরজুড়ে থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

জানা গেছে, ১০ নেতাকর্মী নিহতের প্রতিবাদে হেফাজতে ইসলামের ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল সারাদেশে চলছে। রবিবার (২৮ মার্চ)  দুপুরে বিয়ানীবাজার উপজেলার বৈরাগীবাজার থেকে হরতালের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল বের করতে দেখা গেছে হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের। সেখানে কিছু সময় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে সড়ক অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে হেফাজতের নেতাকর্মীরা। এরপর বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে পৌরশহরের দিকে আসছে হেফাজতের নেতাকর্মীরা। এসময় স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা কোন ধরনের অরাজকতা ও বিশৃঙ্খলা না করার জন্য হেফাজত নেতাকর্মীদের অনুরোধ জানান। কিন্তু এসময় হেফাজত ও ছাত্রলীগের দুই কর্মীর বাকবিতণ্ডতায় হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। এতে আওয়ামী লীগের সভাপতি আতাউর রহমান খান আঘাতপ্রাপ্ত হয়েছেন এবং স্থানীয় চিকিৎসালয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন।

পরে বিয়ানীবাজার শহরে একটি প্রতিবাদ মিছিল করে আওয়ামী লীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করতে দেখা গেছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা দেখে, হরতালকে ঘিরে বিয়ানীবাজারে কঠোর অবস্থানে রয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। পৌর এলাকার মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছে পুলিশ। পুলিশের পাশাপাশি মাঠে রয়েছে স্থানীয় আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। তারা পৌরশহরের বিভিন্ন মোড়ে মোড়ে অবস্থান নিয়েছে।

সারাদেশে হেফাজতের ডাকা হরতালের প্রভাব বিয়ানীবাজারে কিছুটা কম রয়েছে। রাস্তায় যানবাহন অন্যান্য দিনের তুলনায় কিছুটা কম হলেও অন্য সবকিছুই স্বাভাবিক। পৌরশহরের উত্তরবাজার স্ট্যান্ড থেকে অল্প সংখ্যক দূরপাল্লার বাস ছেড়ে গেছে। সকাল থেকে বিভিন্ন সড়কে গণপরিবহন চলাচল করলেও তা সংখ্যায় সীমিত। দোকানপাট-মার্কেট ও বিপনিবিতান খোলা রয়েছে।

তবে সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত কোথাও হেফাজতের নেতাকর্মীদের অবস্থান দেখা গেলেও দুপুর ১টার দিকে হরতালকে সমর্থন জানিয়ে বিয়ানীবাজার পৌরশহরের কলেজ রোডে ঝটিকা মিছিল করেছে যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা। ঝটিকা মিছিলে যুবদল ও ছাত্রদলের ১০/১২ জন নেতাকর্মীকে অংশ নিতে দেখা গেছে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

তিলপাড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী রেজাউল করিম শামিম এর মতবিনিময়