বিয়ানীবাজারে ২২ বছর পর হত্যা মামলার এক আসামীকে গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। সোমবার (৮  মার্চ) সন্ধ্যায় মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা উপজেলার বিছরাবাজারস্থ সুরমা ব্রিক ফিল্ড থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত আবুল কালাম আপন চাচা হত্যা মামলার চার আসামীর মধ্যে অন্যতম।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আভঙ্গী গ্রামের গোরস্থানের জায়গা নিয়ে দুই পক্ষের বিবাদ সৃষ্টি হয়। এদের মধ্যে এক পক্ষ হচ্ছে নিহত আজির উদ্দিন গং ও অপরপক্ষ হচ্ছে তার আপন ভাই সফর উদ্দিন গং। একপর্যায়ে দুই পক্ষ বিয়ানীবাজার থানায় পাল্টা পাল্টি মামলা দায়ের করেন। রাতে পুলিশ দুই ভাইয়ের বাড়িতে আসলে মহিলারা ভয় পান। পরদিন সকালে পুলিশ বাড়িতে আসা ও মহিলারা ভয় পাওয়ার বিষয়টি আজির উদ্দিন তার ভাই সফর উদ্দিনকে বললে উভয় পক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। সফর উদ্দিন তখন তার ঘরে চলে যায়। সকাল ১০টার দিকে আজির উদ্দিন ভাত খাওয়ার সফর উদ্দিন তার পুত্রদের নিয়ে হঠাৎ এসে হামলা চালায়। দেশীয় ধারালো অস্ত্রের আঘাতে আজির উদ্দিন গুরুতর আহত হন। তখন যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় বিয়ানীবাজার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার আগেই কোনাগ্রাম এলাকায় আসার পর তিনি মারা যান।

পুলিশ জানায়, ১৯৯৯ সালে ৬ জুন বিয়ানীবাজার উপজেলার মুড়িয়া ইউনিয়নের আভঙ্গী গ্রামের একরাম আলীর ছেলে আজির উদ্দিন প্রতিপক্ষের হামলায় খুন হয়েছিলেন। স্বজনরা সফর উদ্দিন, কয়েছ আহমদ, আবুল কালামসহ চারজনকে আসামী করে বিয়ানীবাজার থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ মামলার আসামী দুইজন এরই মধ্যে মারা গেছে। ধৃত আসামী আবুল কালাম দীর্ঘ ২২ বছর থেকে পলাতক ছিলেন। তিনি পরিবার নিয়ে পাশ্ববর্তী উপজেলা বড়লেখার বিছরাবন্দ এলাকায় বসবাস করতেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে পুলিশ বিছরাবন্দ এলাকার সুরমা ব্রিক ফিল্ড থেকে তাকে গ্রেফতার করে। তিনি মুড়িয়া ইউনিয়নের আভঙ্গী এলাকার সফর উদ্দিনের পুত্র। খুন হওয়া আজির উদ্দিন তার আপন চাচা।

নিহত আজির উদ্দিনের ছোট ছেলে জুমান আহমদ বলেন, আমার আপন চাচা ও চাচাতো ভাইয়েরা মিলে আমার পিতাকে খুন করে। এক খুনিকে পুলিশ আটক করেছে। আটক খুনির ফাঁসির দাবি জানাচ্ছি। সেই সাথে চাচা মৃত অপরদিকে আরো ২ জন পলাতক আছে। তাদেরকে গ্রেফতার করার জন্য অনুরোধ করছি।

ধৃত আসামিসহ এ মামলায় পলাতক আসামীদের বিরুদ্ধে ২০০০ সালে সিলেট ম্যাজিস্ট্রেট আদালত থেকে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করা হয়েছিলো।

বিয়ানীবাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিল্লোল রায় বলেন, উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ ও সহযোগিতায় এবং প্রযুক্তির সহায়তায় ২২ বছর পর তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামীকে আগামীকাল আদালতে প্রেরণ করা হবে।ন, উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশ ও সহযোগিতায় এবং প্রযুক্তির সহায়তায় ২২ বছর পর তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আসামীকে আগামীকাল আদালতে প্রেরণ করা হবে।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

অনুদানের আশায় কলেজে শিক্ষার্থীদের ভীড় বিয়ানীবাজারের কারা পাচ্ছেন এই টাকা?