বলাৎকারের অভিযোগে আটক বিয়ানীবাজার পৌরসভার ফতেহপুর হায়দর শাহ (রহঃ) হাফিজিয়া মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক (মুহতামিম) হাফিজ আব্দুর রহিমকে (৫২) বৃহস্পতিবার সকালে সিলেটের আদালতে (বিয়ানীবাজার) প্রেরণ করা হয়েছে। বুধবার রাতে তাকে একমাত্র আসামী করে ভিকটিম ছাত্রের পিতা বিজিবি সদস্য বলাৎকারের ঘটনায় মামলা (০৫/১৫-০৯-২১) দায়ের করেন।

বিয়ানীবাজার থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হিল্লোল রায় বলেন, মামলার আসামী মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক আব্দুর রহিমকে সিলেট আদালত প্রেরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় বুধবার রাতে বিজিবি সদস্য ও ভিকটিমের পিতা মামলা দায়ের করেছেন।

দুপুরে সিলেটের বিয়ানীবাজার ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে আসামীকে হাজির করা হলে বিজ্ঞ আদালত আসামীর জামিন আবেদন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

মাদ্রাসা ছাত্র বলাৎকালের ঘটনায় মঙ্গলবার রাত থেকে বিয়ানীবাজার পৌরশহর ও আশপাশ এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। মধ্যরাতে ফতেহপুর এলাকার হায়দর শাহ (রহঃ) মাদ্রাসার ছাত্ররা পৌরশহরে স্বশস্ত্র অবস্থান নেয়। এ সময় তারা পৌর কিচেন মার্কেট ও সাবেক পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেনের ব্যক্তিগত অফিসে হামলায় চালায়। এ ঘটনায় সাবেক পৌর প্রশাসক তফজ্জুল হোসেন বিয়ানীবাজার থানায় হামলার ঘটনায় অভিযোগ দায়ের করেন। এদিকে গতকাল বুধবার দুপুরে বলাৎকারের ঘটনার সত্যতা যাচাই করতে বিজিবি ৫২ ব্যাটালিয়নের সদর দপ্তরে হায়দর শাহ (রহঃ) মাদ্রাসার প্রধান শিক্ষক (মুহতামিম) আব্দুর রহিমকে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। পরে ঘটনার সত্যতা পেয়ে বিজিবির দায়িত্বশীলরা রাত ৮টার দিকে বিয়ানীবাজার থানায় অভিযুক্ত মাদ্রাসা শিক্ষককে হস্তান্তর করে। হস্তান্তর প্রক্রিয়া শেষে রাত ৯টার দিকে ভিকটিমের পিতা বিজিবি সদস্য থানায় মামলা দায়ের করেন।

এবিটিভির বিশেষ প্রতিবেদন

বিয়ানীবাজারে আল-আরাফাহ্ ইসলামী ব্যাংক লিমিটেড’র খাদ্য ও স্বাস্থ্য সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ