গত বৃহস্পতিবারের দৃশ্যপট গতানুগতিক ছিল না, কিছুটা ভিন্ন ছিলো। সিলেটের বিয়ানীবাজার শেওলা-সুতারকান্দি সীমান্ত দিয়ে দুজন ভারতীয়কে ভারতে ফেরত এবং একজন বাংলাদেশীকে বাংলাদেশে ফেরত আনা হয়েছে। তিনজনই বিনা পাসপাের্টে যথাক্রমে ভারতে ও বাংলাদেশে প্রবেশের দায়ে জেল খেটেছেন।

এর আগে গত ২০ জানুয়ারি দুজন নারীসহ ২১ বাংলাদেশিকে বিয়ানীবাজার উপজেলার শেওলা স্থলবন্দর দিয়ে ফেরত পাঠিয়েছিল ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফ।

দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, গত বৃহস্পতিবার করিমগঞ্জের সুতারকান্দি সীমান্ত দিয়ে ভারতে ফিরিয়ে দেওয়া হলো ইকবাল হোসেন দিলবার এবং সেলিম উদ্দিনকে। অন্যদিকে বিয়ানীবাজারের শেওলা স্থলবন্দর দিয়ে ফেরত আনা বাংলাদেশি ব্যক্তির নাম বাবলু রায় ঘাটোয়াল।

সূত্রমতে ভারতীয় নাগরিক ইকবাল হোসেন দিলবার এবং সেলিম উদ্দিন গত বছর পাসপোর্ট ছাড়াই বাংলাদেশে প্রবেশ করেছিলেন। তারা হাজাই এলাকার বাসিন্দা। বিনা পাসপোর্টে বাংলাদেশে প্রবেশ করার জন্য পুলিশ তাদের হাতেনাতে ধরে ফেলে। এরপর তাদেরকে বাংলাদেশের জেলে দেওয়া হয়। এরপর থেকে দুজন জেলেই থাকেন। দুই দেশের উচ্চ পর্যায়ে আলোচনার পর একইদিনে একই সীমান্ত দিয়ে তিনজনকে নিজ নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হয়। করিমগঞ্জ পুলিশের সঙ্গে হাজাই পুলিশও উপস্থিত ছিল।

অন্যদিকে, একইভাবে বিনা পাসপোর্টে বাংলাদেশ থেকে ঢুকে পড়ার পর করিমগঞ্জ পুলিশের হাতে ধরা পড়েন বাবলু রায়। এরপর প্রায় চার বছর ডিটেনশন ক্যাম্পে তাকে সাজা খাটতে হয়েছে। শাস্তির মেয়াদ পূরণ হওয়ার কারণে তাকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।

সৌজন্যে- দৈনিক একাত্তরের কথা।