আহমেদ ফয়সাল। ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭।

চিকিৎসা ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত উন্মোচন করা বিয়ানীবাজারের সন্তান ডা. শফি আহমেদ ব্রিটেনের সবচেয়ে প্রভাবশালী চিকিৎসক হিসাবে সম্মাননা পেয়েছে। গুগল গ্লাস ব্যবহার করে রোগীর অস্ত্রপচার সম্প্রচার করে তিনি চিকিৎসাস্ত্রে বিরল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেন। তাঁর এ বিরল কৃতিত্ব অর্জন করায় ‘ব্রিটিশ-বাংলাদেশি পাওয়ার অ্যান্ড ইনসপায়ারেশন (বিবিপিআই)’ তাঁকে এ সম্মানে ভূষিত করে। ‘পারসন অফ দ্য ইয়ার-২০১৭’  অনুষ্ঠানে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশিদের মধ্যে শীর্ষ উদ্যোক্তা, সমাজ সংগঠক এবং বিশ্ববরেণ্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

শুক্রবার লন্ডনের শার্ডে এক অনুষ্ঠানে শাফি আহমেদকে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশিদের মধ্যে ‘পারসন অফ দ্য ইয়ার-২০১৭’ সম্মানে ভূষিত করে সংগঠনটি। এবার নিয়ে বিবিপিআই টানা ছয় বছর যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বিভিন্ন ক্ষেত্রে সফল হওয়া বাংলাদেশিদের এ সম্মাননা প্রদান করেছে। এর আগে একই সম্মানে ভূষিত হয়েছেন ডা. শফির বড় বোন ক্রাউন কোর্টে প্রথমবারের মত কোন বাংলাদেশি হিসেবে পদোন্নতি পাওয়া বিচারিক জজ ব্যারিস্টার স্বপ্নারা খাতুন এবং আরেক বিয়ানীবাজারী বিবিসি ‘গ্রেট ব্রিটিশ বেক’ খ্যাত নাদিয়া হুসেইন।

ডা. শফি আহমেদের পিতা প্রয়াত মিম্বর আলী মুক্তিযদ্ধের সফল সংগঠক ও বাংলাদেশ ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন ইউকে’র সভাপতি ছিলেন। তিন ভাই ও ১ বোনের মধ্যে ডা. শফি তৃতীয়। চিকিৎসক স্ত্রী ও দুই সন্তান নিয়ে ব্রিটেনের তাদের গোছানো সংসার। বাংলাদেশে তাঁর বাড়ি সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলার মোল্লাপুর ইউনিয়নের মোল্লাগ্রামে।

গত বছরের ১৪ এপ্রিল বাংলাদেশি চিকিৎসক শফি আহমেদের গুগল গ্লাস দিয়ে উইচ্যাটের মাধ্যমে অপারেশন থিয়েটার থেকে অস্ত্রোপচার সরাসরি সম্প্রচার করেন। তাঁর এ সম্প্রচার ভার্চুয়াল জগতে হৈচৈ ফেলে দেয়। ভাচৃুয়াল রিয়েলিটি তৈরি করে অপারেশন থিয়েটারের ৩৬০ ডিগি দেখা যাচ্ছিলো ওই অস্ত্রোপচারে। অস্ত্রোপচার সরাসরি সম্প্রচারের ফলে বিশ্বের প্রায় ১৩০টি দেশের চিকিৎসক ও শিক্ষার্থীরা সরাসরি ইন্টারনেটে অস্ত্রোপচারটির সম্প্রচার দেখেন।

চিকিৎসক শফির ওই সম্প্রচার চিকিৎসাবিজ্ঞানে ভার্চুয়াল রিয়ালিটির ক্ষেত্রে ‘পথিকৃৎ’ বলে মনে করেন আয়োজক সংগঠন বিবিপিআই। সংস্থাটির দায়িত্বশীলরা মনে করেন এর মধ্য দিয়ে ভবিষ্যতে চিকিৎসা বিজ্ঞান আরও স্বচ্ছ হবে এবং চিকিৎসাশাস্ত্রে প্রশিক্ষণও সহজ হবে।

ডা. শফির চাচাতো ভাই যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্র সংসদের সাবেক ভিপি ছরওয়ার আহমদ এ প্রতিবেদককে বলেন, শফি আহমেদ ‘পার্সন অফ দ্য ইয়ার’ সম্মানে ভূষিত হওয়ার আমরা খুবই খুশি হয়েছি। এটার তাঁর প্রাপ্য ছিল। তিনি বলেন, ডা. শফি এ সম্মানে ভূষিত হয়ে নিজেকে আরও পরিণত করার অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন। ছরওয়ার জানান, পুরস্কার মঞ্চে ডা. শফি সম্মানিত হওয়ার প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “আমি সত্যিই অভিভুত হয়েছি। এ পুরস্কারের ফলে শিক্ষকতা এবং অন্যের জন্য উদাহরণ তৈরি করতে কর্মজীবন উৎসর্গ করবোচিকিৎসা ক্ষেত্রে  প্রযুক্তি ব্যবহার করে কেবল অন্যদের উদ্বুদ্ধ করতে চাই না- বরং বিশ্বব্যাপী এ খাতের আরও উন্নয়ন ও উন্নতি করতে চাই।” ছরওয়ার আহমদ গতকাল শনিবার বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টার দিকে তার ফেসবুক টাইমলাইনে পারসন অব ইয়ার ভূষিত হওয়া ডা. শফি ছবি আপলোড করেন। এক ঘন্টার মধ্যে ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়ে।