বিয়ানীবাজার নিউজ ২৪। ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭।

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ২০১২ সালে চারখাইয়ের একটি অনুষ্ঠানে চারখাই বাজারের ত্রিমুখের গোল চত্বরকে নাহিদ চত্বর হিসাবে ঘোষণা দেন। অনুষ্ঠানে উপস্থিত সরকারের সংশ্লিষ্টদের এ চত্বরের নামকরণের জন্য প্রয়োজন কাজ করারও নিদের্শ দেন। কিন্তু ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণার কোন বাস্তবায়ন ঘটেনি।

১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি এক দলীয় শাসন প্রতিরোধ এবং ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে বিয়ানীবাজার সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী হুমায়ুন কবির চৌধুরী নাহিদ শাহাদত বরণ করেন। একই বছরের ১২ জুন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে, সিলেট-৬ আসনের (বিয়ানীবাজার-গোলাপগঞ্জ) সাংসদ নির্বাচিত হন নুরুল ইসলাম নাহিদ।

১৯৯৭ সালে শহিদ নাহিদের প্রথম মৃত্যু বার্ষিকীতে চারখাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগসহ এলাকার মানুষের দাবি ছিল শহিদ নাহিদের স্মৃতি রক্ষার্থে কিছু করার। ২০১২ সালে এক অনুষ্ঠানে এলাকাবাসী চারখাই ত্রিমুখে গোল চত্বর স্থাপন করে এটি শহিদ নাহিদের নামে নামকরণের দাবি জানান। এলাকাবাসীর দাবির প্রেক্ষিতে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ চত্বরের নাম শহিদ নাহিদের নামে নামকরণ করার ঘোষণা দেন।

চারখাই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম বলেন, গোল চত্বর হয়েছে কিন্তু এখনো শহিদ নাহিদের নামে নামকরণ হয়নি। মন্ত্রীর ঘোষণার ৫ বছর পেরিয়ে গেলেও তার ঘোষনার বাস্তবায়ন না হওয়ায় আমরা হতাশ।