সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কের হেতিমগঞ্জ এলাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত চারখাইয়ের দুই তরুণের পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছে বিয়ানীবাজার উপজেলা প্রশাসন। বুধবার বিকেলে নিহতদের বাড়িতে গিয়ে উপজেলা প্রশাসনের ত্রাণ তহবিল থেকে ২০হাজার টাকা করে মোট ৪০ হাজার টাকা প্রদান করেন বিয়ানীবাজার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী মাহবুব।

এ সময় তিনি নিহতদের পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান এবং তাদের যেকোন সমস্যায় উপজেলা প্রশাসন পাশে থাকবে বলে মন্তব্য করেন। নিহতরা হচ্ছেন চারখাই কঁচকটখাঁ এলাকার হাজী আব্দুল জলিলের ছেলে সুনাম মিয়া (২৪) ও একই এলাকার মৃত কুনু মিয়ার ছেলে রাজন (২২) এর পরিবারের হাতে নগদ ২০ হাজার টাকা করে তুলে দেন ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মুশফিকুর রহমান, চারখাই ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ আলী, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে গোলাপগঞ্জে নিহত শিশু মেহেদী হাসানের বাবার হাতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম কবীর নগদ ২০ হাজার টাকা তুলে দেন।

গোলাপগঞ্জে নিহত শিশুর পরিবারকে নগদ ২০ হাজার টাকা প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন, এডিশনাল এসপি মোঃ মাহবুবুল আলম, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা গোলাম কবীর, সার্কেল এসপি রাশেদুল হক চৌধূরী, পুলিশ পরিদর্শক আবুল কাশেমসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধি।

উলে­খ্য, বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) ভোর ৫টার দিকে হেতিমগঞ্জ পশ্চিম বাজার এলাকার মোল­াগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন স্থানে সড়কের উপর দাড়িয়ে থাকা একটি মালবোঝাই ট্রাকের সাথে বিয়ানীবাজার গামী মাইক্রো পেছন দিকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে চালক সুনাম উদ্দিন ও সামনের আসনে বসা রাজন আহমদ মারা যান। অল্প সময়ের মধ্যে মাইক্রোর সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হলে পেছনের আসনে থাকা অজ্ঞাত ব্যক্তি এবং সড়কের পাশে বস্তির শিশু মেহেদী হাসান মারা যায়।

এবিটিভির সর্বশেষ প্রতিবেদন-

সিলেট-জকিগঞ্জ সড়কে দূর্ঘটনায় বিয়ানীবাজারের দু'জনসহ নিহত ৪