বিয়ানীবাজারে যথাযথ ধর্মীয় ভাব গাম্ভির্যের মধ্য দিয়ে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপিত হয়েছে। এবারের ঈদুল ফিতরের সর্বশেষ বৃহৎ ঈদুএর জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে পৌরশহরের সুপাতলস্থ এমএজি ওসমানী স্টেডিয়ামে। বুধবার সকাল সাড়ে ৯টায় ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা এখানে ঈদের নামাজ আদায় করেব। সকাল ৮টা থেকে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ নতুন পোশাক পড়ে আল্লাহু আকবার ধ্বনিতে মাঠে জড়ো হন।

ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাতের ইমামমতী ও খুতবা পাঠ করেন জামিয়া ফারুকিয়া সিলেট’র প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক শায়খুল কুররা ক্বারী হাফিজ মাওলানা আব্দুল মতিন দাঃ বাঃ। নামাজ শেষে সমগ্র মুসলিম উম্মাহসহ দেশ ও জাতির কল্যাণ, সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

 

এদিকে, ওসমানী স্টেডিয়ামে সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের সাথে ঈদুল ফিতরের জামাত আদায় করেন বিয়ানীবাজার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাশেম পল্লব। জামাতের পূর্বে সমবেত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে পবিত্র ঈদুল ফিতরের শুভেচ্ছা জানিয়ে আবুল কাশেম পল্লব সকলকে বিগত দিনের সকল হিংসা-বিদ্বেষ ও ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে ঈদ উদযাপন করার অনুরোধ জানান। এসময় তিনি বিয়ানীবাজারের সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন।

এসময় স্থানীয় এলাকাবাসীসহ জাতীয় পর্যায়ের খ্যাতিমান ব্যক্তিবর্গসহ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধি, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাকর্মী, সমাজসেবী ও সুধীজন, সাংবাদিক, প্রবাসী কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ ছাড়াও সর্বস্তরের হাজারো মানুষ এ মাঠে ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেন। ঈদের জামাত শেষে এখানে সর্বস্তরের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা একে অন্যের সাথে ঈদের শুভেচ্ছা ও কুশল বিনিময় করেন। এসময় এক আনন্দঘন মুহূর্তের সৃষ্টি হয়।

উল্লেখ্য, পৌরশহরের সুপাতলাস্থ এমএজি ওসমানী স্টেডিয়ামে গত ১০ বছর থেকে মুসলমানদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার জামাত অনূষ্ঠিত হয়ে আসছে। স্থানীয় এলাকাবাসী ছাড়াও যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, মধ্যপ্রাচ্যসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বসবাসরত প্রবাসীদের আর্থিক সহয়তায় এখানে প্রতিবছরই ঈদের প্রধান দুটি জামাত আদায়ের আয়োজন করা হয়।