বিশ্বানাথ প্রতিনিধি। ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭।

উৎসব মুখর পরিবেশে হাজার হাজার ভক্তবৃন্দের উপস্থিতিতে সিলেটের বিশ্বনাথে পালিত হচ্ছে শ্রীশ্রী ঠাকুর বৈষ্ণব রায়ের তিনদিন ব্যাপী অন্তর্ধান মহোৎসব।

উপজেলার বিষ্ণুপুর ধামের সিদ্ধ বকুল তলায় আয়োজিত এই উৎসবে সিলেট বিভাগের প্রায় ৩০/৩৫ হাজারেরও বেশি সনাতন ধর্মাবলম্বীর উপস্থিতিতে উৎসব অঙ্গন এখন মুখরিত। প্রায় ৫শত বছরের বেশী সময় ধরে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে প্রতি বছরের মাঘী পূর্ণিমা তিথিতে এ উৎসব পালন করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

উৎসব উপলক্ষে অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে উৎসব অঙ্গনে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে জানিয়ে বিশ্বনাথ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মনিরুল ইসলাম পিপিএম সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, সিদ্ধ বকুল তলা’র নিরাপত্তায় অতিরিক্ত পুলিশের পাশাপাশি সেখানে সাদা পোশাকেও পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

শুক্রবার (১০ফেব্রুয়ারি) উৎসবের ২য়দিনে দুপুর ১২টায় ভোগ আরতি দর্শন ও বেলা ১টায় মহাপ্রসাদ বিতরণ করা হয়। বিকেলে শ্রীশ্রী নাম ও লীলা কীর্তন পরিবেশন করেন সিলেটের শ্রীশ্রী মহাপ্রভু আখড়ার শ্রী বিনোদ বিহারী দাস বাবুল, শ্রী নিশিকান্ত তালুকদার, বিশ্বনাথের সুধাংশু শেখর দত্ত শিল্টু বাবু, সুনামগঞ্জের শ্রী নিরঞ্জন দাস ও দিরাইর শ্রী রতন মনি দাস বাবুল।

এর আগে বৃহস্পতিবার (৯ ফেব্রুয়ারি) উৎসবের প্রথম দিন সকালে কালাচাঁদের অর্চনা, কীর্তন পরিক্রমা ও ভোগরাগ, বিকেলে শ্রীমতভগবত গীতা পাঠ ও শ্রীশ্রী চৈতন্যচরিতমৃত পাঠ করা হয়। ওইদিন রাতে মহোৎসবের মঙ্গলঘট স্থাপন করেন ওসমানীনগরের শ্রী শান্ত গোস্বামী এবং মহোৎসবের শুভ অধিবাস পরিচালনায় ছিলেন সিলেটের শ্রী নিশিকান্ত তালুকদার।

শনিবার (১১ ফেব্রুয়ারি) উৎসবের শেষ দিন সকাল ৮টায় শ্রী শ্রী নাম ও লীলা সংকীর্ত্তন সমর্পণ পূর্ণা পরিবেশনায়ও থাকবেন শ্রীযুক্ত নিশিকান্ত তালুকদার।

এদিকে মহোৎসব সুষ্ঠ ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে প্রশাসনসহ সর্বস্থরের জনসাধারণের সহযোগীতা কামনা করেছেন অন্তর্ধান উৎসব উদযাপন কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট প্রহলাদ চন্দ্র দেব ও সাধারণ সম্পাদক মানিক লাল দে। এসময় তারা পুলিশ প্রশাসনসহ সকলকে আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করে সিলেটটুডে টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, প্রতি বছরের ন্যায় এবারও দেশ-বিদেশ থেকে ভক্তরা এসেছেন। সুশৃঙ্খলভাবে অন্তর্ধান মহোৎসব চলছে।