যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশি কমিউনিটির অন্যতম বৃহত্তম সংগঠন বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকের নব নির্বাচিত কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ২৪ অক্টোবর, রবিবার পূর্ব লন্ডনের রয়্যাল রিজেন্সি বেঙ্কুয়েটিং হলে জমজমাট এক অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে নতুন কমিটির কাছে চ্যারিটি সংগঠনটির পরিচালনার দায়িত্ব অর্পন করা হয়।

প্রাণঘাতী করোনা মহামারীর কারণে দীর্ঘ দেড় বছরের বেশি সময় যুক্তরাজ্যে বাংলাদেশিদের সামাজিক ও সাংস্কৃতিক আয়োজনগুলো স্থবির ছিলো। বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকের নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সেই স্থবিরতার যেন অবসান ঘটে। করোনার আতঙ্ক ভুলে অনুষ্ঠানটি হয়ে উঠেছিলো যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বিয়ানীবাজারবাসী এবং কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিদের এক জমজমাট মিলন মেলা। অনেকে পরিবার-পরিজন নিয়ে অনুষ্ঠানে এসেছিলেন।

তবে তাঁরা করোনায় হারানো প্রিয়জনদের কথা ভুলে যাননি। অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করা হয় করোনায় হারানো বিয়ানীবাজারবাসী এবং কমিউনিটির গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কথা। এই অভিষেক অনুষ্ঠান উপলক্ষ্যে আলী বেবুল ও সোহেল আহমদের সম্পাদনায় প্রকাশিত স্মারক ম্যাগাজিনেও তুলে ধরা হয়েছে করোনায় প্রাণ হারানো সংগঠনের সদস্যদের নামের তালিকা।

প্রায় ৫ শতাধিক অতিথির উপস্হিতিতে এই আয়োজনে প্রধান অতিধি ছিলেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের এমপি স্টিফেন টিমস। বিশেষ অতিথি ছিলেন ব্রিটিশ পার্লামেন্টের উচ্চ কক্ষ হাউজ অব লর্ডসের সদস্য লর্ড বারন মোহাম্মদ ইলতাফ শেখ, টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস। তারা যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি ও সমাজ জীবনে বাংলাদেশিদের নানা অবদানের কথা তুলে ধরে বলেন, বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের জনদরদি কাজ সম্পর্কে তারা দীর্ঘদিন থেকে অবগত। এমন চ্যারিটি সংগঠন অসহায় মানুষের ঘুরে দাড়ানোর ক্ষেত্রে শক্তিশালী অবলম্বন হিসেবে কাজ করে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ট্রাস্টের বিদায়ী সভাপতি মো: দেলওয়ার হোসেন বলেন, বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকে সূচনা থেকেই আত্মমানবতার সেবায় নিবেদিতভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ঐতিহ্যবাহী এই সংগঠনের সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করাটা তাঁর জন্য অত্যন্ত সম্মানের। তিনি এবং তাঁর কমিটি আন্তরিকতার সঙ্গে সংগঠনের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে এবং সংগঠনের কার্যক্রমকে এগিয়ে নিতে কাজ করে গেছেন। ভবিষ্যৎ নেতৃত্বও সংগঠনের এই অগ্রগতির ধারা অব্যাহত রাখবে বলে তিনি প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন।

সংগঠনের বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আহমদ রাজু তাদের কমিটির নানা উন্নয়নমূলক কার্যক্রমের সংক্ষিপ্ত বর্ণনা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট মানবসেবার কাজে যেন সবসময় সেরা থাকে সেই লক্ষ্য নিয়েই তারা কাজ করে গেছেন। তিনি নতুন কমিটির দায়িত্বপ্রাপ্তদের জন্য শুভকামনা জ্ঞাপন করেন।

এরপর বিদায়ী সভাপতি মো: দেলওয়ার হোসেনের আহবানে মঞ্চে আসেন সংগঠনের সম্প্রতি অনুষ্ঠিত নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করা তিন সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশনের অন্যতম সদস্য কাউন্সিলার সামসুল ইসলাম সেলিম। তিনি ২০২১-২০২৩ সালের জন্য নির্বাচিত কমিটির সদস্যদের একে একে পরিচয় করিয়ে দেন। তুমুল করতালির মাধ্যমে নব নির্বাচিত কমিটিকে স্বাগত জানান উপস্থিত সকলে।

নবনির্বাচিত কমিটির সভাপতি রহিম উদ্দিন বলেন, ঐতিহ্যবাহী বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট ইউকের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করায় তিনি সকলে প্রতি কৃতজ্ঞ। বিশাল এই সংগঠনের দায়িত্ব যেন তিনি সঠিকভাবে পালন করতে পারেন সেজন্য বিদায়ী কমিটি সহ সংগঠনের সকল পর্যায়ের ব্যক্তিবর্গের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।

নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদক দিলওয়ার হোসেন সংগঠনের সকল বিদায়ী নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানান। বলেন, সংগঠনের সুনাম ও অগ্রগতির ধারা বজায় রাখতে তাঁরা হৃদয় দিয়ে কাজ করে যাবেন।

নবনির্বাচিত ২১ সদস্য বিশিষ্ট এই কমিটির অন্যান্য পদে আছেন- কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব আব্দুল সফিক। সহসভাপতি সাহেদ আহমদ, ছওয়াফ উদ্দিন, জাহিদুর রহমান ও জাকির হোসেন। যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলী বেবুল, আতাউর রহমান আতা। যুগ্ম কোষাধ্যক্ষ আবু আহমদ সরওয়ার। সাংগঠনিক সম্পাদক আকবর হোসেন রবিন। প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সোহেল আহমদ। শিক্ষা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আল মামুনুর রশীদ হিলারি। সমাজকল্যাণ সম্পাদক জুবের আহমদ। দপ্তর সম্পাদক আমিনুর রহমান সেলিম। যুব ও ক্রীড়া সম্পাদক ইকবাল হোসেন। এবং পরিচালক আতিক হোসেন, বদরুল ইসলাম সাহিদ, বদরুল হক, কবির হোসেন ও শামীম আহমেদ। গত ১২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত নির্বাচনে এই কমিটি নির্বাচিত হয়।

নতুন সাধারণ সম্পাদক দিলওয়ার হোসেনের উপস্হাপনায় অভিষেক অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- টাওয়ার হ্যামলেটস বারার স্পিকার আহবাব হোসেন, বাংলাদেশ হাই কমিশন লন্ডনের ফার্স্ট সেক্রেটারি এ জেড এম শরিফ হোসেন, লন্ডন বাংলা প্রেস ক্লাবের সাবেক প্রেসিডেন্ট সৈয়দ নাহাস পাশা, কাউন্সিলার আয়েশা চৌধুরী, বাংলাদেশ সেন্টারের ভাইস চেয়ারম্যান শাহানুর খান, ইউকে বিবিসিএ’র সাধারণ সম্পাদক তফজ্জুল মিয়া, লন্ডন ইস্ট কনজারভেটিভের চেয়ার আহমেদুর রহমান আতিক,বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আসুক আহমদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ,নতুন কমিটির কোষাধ্যক্ষ আলহাজ্ব আব্দুল সফিক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা, সাংগঠনিক সম্পাদক আকবর হোসেন রবিন, বিয়ানীবাজার ক্যান্সার হাসপাতালের ট্রাস্টি আব্দুস সামাদ, বড়লেখা ফাউন্ডেশন ইউকে’র সভাপতি সুহেল আহমদ প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে বিদায়ী সভাপতি দেলোয়ার হোসেন ও বিদায়ী সাধারণ সম্পাদক মাহবুব আহমদ রাজুকে বর্তমান কমিটির পক্ষ থেকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। ক্রেস্ট প্রদান কালে মঞ্চে উপস্হিত ছিলেন টাওয়ার হ্যামলেটসের নির্বাহী মেয়র জন বিগস, স্পিকার আহবাব হোসেন, ইউকে বিসিসিআইয়ের ডিরেক্টর এম এ গণি,বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি আসুক আহমদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক শামীম আহমদ
ও কোষাধ্যক্ষ মামুন রশীদ।

এছাড়া অনুষ্ঠানে বৃটিশ বিয়ানীবাজারী সন্তান টাওয়ার হ্যামলেটস বারার সদ্য নির্বাচিত ইয়ং মেয়র তাহমিদ হোসেন বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের প্রকাশিত স্মারক ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। আলী বেবুলের সঞ্চালনায় বিশেষ এ প্রকাশনাটির মোড়ক উন্মোচন করেন শাহজালাল ব্যাংকের ভাইস চেয়ারম্যান হারুন মিয়া, সাপ্তাহিক জনমতের ব্যবস্হাপনা পরিচালক আমিরুল চৌধুরী,পরিচালক জুনাইদ চৌধুরী, জালালাবাদ এসোসিয়েশন ইউকের সাধারণ সম্পাদক আমিনুল জিলু. ইউরোপিয়ান প্রবাসী বাংলাদেশী এসোসিয়েশনের সভাপতি করিম মিয়া শামীম, গোলাপগঞ্জ উপজেলা এডুকেশন ট্রাস্টের সভাপতি আলতাফ হোসেন বাইস,বিয়ানীবাজার উপজেলা প্রগতি এডুকেশন ট্রাস্টের সভাপতি হাবিবুর রহমান ময়না,উপদেষ্টা নুরুল ইসলাম, বাংলাদেশ সেন্টারের প্রধান নির্বাহী সৈয়দ মুস্তাফিজুর রহমান, ফেইথ প্রিন্টিংয়ের ব্যবস্হাপনা পরিচালক সাংবাদিক মোসলেহ উদ্দিন আহমদ,এডিটর ২৪ ডট কমের সম্পাদক আহাদ চৌধুরী বাবু,বিয়ানীবাজার থানা জনকল্যাণ সমিতি ইউকে’র সাধারণ কামরুল হোসেন মুন্না, বিয়ানীবাজার ওয়েলফেয়ার ট্রাস্টের সহসভাপতি জাহিদুর রহমান,জাকির হোসেন,পরিচালক কবির হোসেন,স্পন্সরদের মধ্যে মো: নুরুজ্জামান, খায়রুল ইসলাম আলীম ও কদরুল ইসলাম।

এছাড়া অতিথিদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন টাওয়ার হ্যামলেটস বারার সাবেক লিডার হেলাল উদ্দিন আব্বাস,লন্ডন টাইগারসের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মেসবা আহমদ, বিয়ানীবাজার স্পোর্টিং ক্লাব ইউকে’র সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন।

অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন আবু কাওসার। মঞ্চে শুরুতে পরিবেশিত হয় বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত। ছিলো সাংস্কৃতিক আয়োজন। এতে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বিলেতের স্বনামধন্য বাংলা সঙ্গীত শিল্পী কুইন, হাসি রাণী এবং শিল্পী সয়ফুল আলম। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন ট্রাস্টের সহসভাপতি শাহেদ আহমদ।