বিয়ানীবাজার পৌরসভার নয়াগ্রামে ডাকাতির ঘটনায় যুক্ত দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে জকিগঞ্জ উপজেলায় অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে।

শুক্রবার রাতে বিয়ানীবাজার থানা পুলিশ প্রযুক্তির সহযোগিতা ও গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জকিগঞ্জ উপজেলার নয়াগ্রাম এলাকা থেকে মৃত আব্দুল মানিকের পুত্র মতিউর রহমান (আতাউর রহমান, সুজন, সফর)কে আটক করে পুলিশ। তার তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ বিয়ানীবাজার পৌরসভার নয়াগ্রাম এলাকার ছমেদ মিয়ার পুত্র দেলোয়ার হোসেনকে আটক করে। পুলিশ তাদের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে ডাকাতি হওয়া দুইটি স্বর্ণের ছুড়ি ও কিছু নগদ টাকা উদ্ধার করে।

থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সিহকারি পুলিশ সুপার (সার্কেল) মোস্তাক সরকার, ওসি শাহজালাল মুন্সী, ওসি তদন্ত জাহিদুল হক ও এসআই সিরাজুল ইসলাম অভিযানে অংশ নেন। আটক দুই ডাকাত প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ডাকাতি ঘটনার সাথে ৮/৯জন যুক্ত ছিলেন।

বিয়ানীবাজার থানা ওসি শাহজালাল মুন্সী বলেন, শুক্রবার রাতে সাড়াশি অভিযান চালিয়ে জকিগঞ্জ থেকে একজন ও বিয়ানীবাজারের নয়াগ্রাম থেকে অন্যজনকে আটক করা হয়। আটককৃতরা জানিয়েছে এ ঘটনায় ৯/৮জন যুক্ত ছিল। আসামীদের গ্রেফতার করার স্বার্থে এই মুহূর্তে তাদের নাম পরিচয় প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তিনি বলেন, ডাকাত মতিউরের কাছ থেকে দুইটি সোনার চুড়ি ও ১ হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়। তার বিরুদ্ধে বিয়ানীবাজার, গোলাপগঞ্জ ও জকিগঞ্জ থানায় ৭টি ডাকাতি মামলা রয়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ২৫ জুলাই পৌরসভার নয়াগ্রামের ব্যবসায়ী ফয়ছল আহমদের বাড়িতে ডাকাতির ঘটনা ঘটে। ডাকাতরা ২১ ভরি স্বর্ণালংকার, দুইটি মোটর সাইকেলসহ মালামাল ছিনিয়ে নেয়। পরে বৈরাগীর আব্দুল্লাহপুর এলাকায় একটি মোটরসাইকেল পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। ২৬ জুলাই ফয়ছল বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।